ডেস্ক : নতুন করে ফের উত্তেজনা বিরাজ করছে পাক-ভারত সীমান্তে। দুই দেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী আক্রমণ ও পাল্টা আক্রমণ করছে বলে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে।
ভারতের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, সীমান্ত সংলগ্ন গ্রাম টার্গেট করে শেল নিক্ষেপ করছে পাক সেনাবাহিনী। শুধু গ্রামই নয়, সীমান্ত সংলগ্ন সেনা ছাউনিগুলিকে টার্গেট করছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। তবে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকেও কঠোর জবাব দেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

ভারতের অভিযোগ, ভারত-পাকিস্তান সীমান্ত সংলগ্ন নৌসেরা, রাজৌরি, পুঞ্চসহ একাধিক সেক্টরে বিনা প্ররোচণায় অস্ত্রবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করছে পাকিস্তান সেনা।

শনিবার দুপুরের পর থেকে সীমান্তের ওপার থেকে লাগাতার সীমান্ত সংলগ্ন গ্রাম এবং সেনা ছাউনিগুলিকে পাক সেনারা টার্গেট করছে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। তবে পাকিস্তানকে কড়া ভাষায় পাল্টা জবাব দিচ্ছে ভারতীয় বাহিনী।

এদিকে, দুই পক্ষের গোলাগুলিতে নতুন করে উত্তপ্ত সীমান্ত পরিস্থিতি। যেহেতু সাধারণ মানুষকে টার্গেট করছে পাকিস্তানি সেনারা, সেহেতু সীমান্ত সংলগ্ন এলাকাগুলি থেকে সাধারণ মানুষকে সরে যেতে বলা হয়েছে। প্রয়োজনে বাঙ্কারে থাকার জন্যও বলা হয়েছে।

তবে দুই পক্ষের গোলাগুলিতে এখনও পর্যন্ত কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। এমনকি হতাহতেরও কোনও খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।

সেনা সূত্রের বরাত খবরে বলা হয়েছে, বিনা প্ররোচণাতে সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের পর থেকে সীমান্তে সেনা হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছে। বেশিরভাগ সময়েই পাকিস্তান সেনা শেলিং চালিয়ে জঙ্গিদের কভার ফায়ারিং দেয়। সীমান্তে ভারতীয় সেনাকে ব্যস্ত রেখে ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ করে থাকে।

আর সেজন্যই সীমান্তে সেনা-জওয়ানদের অ্যালার্টে রাখা হয়েছে। যেকোনো পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। সীমান্তে সেনা-জওয়ানদের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনকেও অ্যালার্টে থাকতে বলা হয়েছে।