ডেস্ক : মা করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত কয়েকদিন ধরেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অসুস্থ মা সুস্থ হয়ে ফিরে আসবে এজন্য ৫বছরের শিশু শাফিন সারাদিন বসে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের সামনেই। মুখে মাস্ক লাগিয়ে হাতেথাকা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে বারবার হাত পরিষ্কার করেই কাটছে সময়। এর মাঝেই কখনো সে হাসপাতাল এলাকায় একা এদিক-সেদিক দৌড়ে বেড়াচ্ছে। কখনো মায়ামাখা মুখটা মলিন করে দাঁড়িয়ে থাকছে হাসপাতালের এক কোণে।
সাব্বির আহম্মেদ শাফিন (৫) ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলার সাইফুল ইসলাম এর ছেলে। সাইফুল একটি কসমেটিকস কোম্পানিতে চাকরি করেন।

শাফিনের বাবা সাইফুল ইসলাম বলেন, কয়েক দিন আগে আমার স্ত্রী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন হাসপাতালে ভর্তি আছে। আজ ডাক্তার জানিয়েছেন, তার অবস্থা খুব খারাপের দিকে।’‘স্ত্রীর করোনা ধরা পড়ার পর ছেলেকে গ্রামের বাড়ি দাদা -দাদির কাছে পাঠিয়ে দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তারা বলেন, এখানে রাখা যাবে না। ওর জন্য এখানে যদি আবার কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়। এদিকে মাকে ছাড়া শাফিন বাড়িতে থাকতে পারছে না। মাকে করোনা সেন্টারে রেখে ও সারাদিন রোদের মধ্যে বসে মায়ের জন্য অপেক্ষা করে। আমিও রাতে ছেলের সঙ্গে এখানে বসে অপেক্ষা করি।’

শিশু সাব্বির আহম্মেদ শাফিন বলে, ‘আব্বু বলছে, মায়ের কি যেন একটা অসুখ হয়েছে। মাকে ওই ঘরে অনেকের সাথে রেখে এসেছে। আমাকে মায়ের কাছে যেতে দিচ্ছে না কেউ। আব্বু বলছে, আম্মু সুস্থ হয়ে বের হয়ে আসবে। তাই তো আমি এখানে মায়ের জন্য প্রতিদিন অপেক্ষা করি। কিন্তু মা আসছে না। আমার মা কখন বের হয়ে আমার কাছে আসবে?’ এভাবে বলতে বলতে মায়ের জন্য কেঁদে দেয় শিশু সাব্বির।