নোতুন খবর.কম :
বগুড়া সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের কুশাহাটা গ্রামে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান এক নারী। তবে সংক্রমণের ভয়ে মরদেহ গোসলের জন্য কেউ এগিয়ে আসছিলেননা। গোসল করানোর লোকও পাওয়া যাচ্ছিল না। খবর পেয়ে ওই মরদেহ গোসল করানোর জন্য এগিয়ে আসেন বগুড়া সোনাতলা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন।
মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) দিবাগত রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার কুশাহাটা গ্রামে করোনায় আক্রান্ত রিনা বেগমের (৫৫) শারীরিক অবস্থা গুরুতর হলে পরিবারের লোকজন তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে বিকেল ৩টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত রিনা বেগমকে বাড়িতে নিয়ে আসলে গোসলের জন্য কেউ রাজি ছিলেন না। এমন অবস্থায় এগিয়ে আসেন সোনাতলার ইউএনও সাদিয়া আফরিন। তিনি করোনায় আক্রান্ত মৃত রিনা বেগমকে গোসল করান। পরে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হয়। জানাজায় ১৫ জন অংশ নেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম রেজা, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) কামাল হোসেন, জোড়গাচা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান রোস্তম আলী মণ্ডল।

সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন বলেন, করোনায় মৃত নারীকে কেউ জানাজার জন্য গোসল করাতে রাজি হচ্ছিলেন না। তার কোনো সন্তানও নেই। এছাড়া তার স্বামীও করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। তখন আমি সেখানে গিয়ে গোসল করিয়ে দেই। এতে আমাকে এক বৃদ্ধা সহযোগিতা করেছেন।