ডেস্ক : কুকুর ও বিড়াল থেকে করোনাভাইরাস ছড়াতে পারে এমন গুজবে চীনে কুকুর বিড়াল হত্যার হিড়িক পড়েছে। সম্প্রতি চীনের কয়েকটি প্রদেশে রাস্তায় পড়ে থাকা মৃত কুকুর বিড়ালের ছবি প্রকাশ পাওয়ার পর বিষয়টি জানা গেছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, কয়েকদিন আগে চীনের হুবেই প্রদেশের তিয়ানজিন সিটির হায়ুয়ান গুহে গার্ডেন এলাকায় রাস্তায় একটি কুকুরকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

স্থানীয়দের দাবি, একটি টাওয়ার ব্লকের ওপর তলা থেকে ভোর ৪ টায় ওই কুকুরটিকে ফেলে দেওয়া হয়েছিল । তবে মাটিতে পড়ার আগে এটি প্রথমে একটি গাড়ির ওপরে পড়ে।

গণমাধ্যম বলছে, ওইদিন কুকুরটি পড়ার শব্দে আশেপাশের প্রতিবেশীরা জেগে ওঠেছিলেন। পরে তারা সেটাকে রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন।
তবে ওই ঘটনায় কুকুরের মালিককে সনাক্ত করা যায়নি।

সাম্প্রতিক সময়ে চীনের সাংহাই শহরেও পাঁচটি বিড়ালকে রাস্তায় মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। বিড়ালগুলোর গায়ে মসৃণ ও পরিষ্কার লোম দেখে স্থানীয় ধারণা করছেন এগুলো কারও পোষা প্রাণী ছিল। তবে বিড়ালগুলোর মালিক কে সেটা জানা যায়নি।

চীনের সেন্ট্রাল টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই দেশের মহামারী বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসক ডা. লি লানজুয়ানর বিষয়টি জানিয়েছেন।

ডা. লানজুয়ান বলেছেন, সন্দেহভাজন রোগীরা পোষা প্রাণীর সংস্পর্শে গেলে তাদেরকে আলাদা করা উচিত।

এদিনে চীনের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ‘ঝিবো চীন’ এ কথায় কথায় বিড়াল এবং কুকুরের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে দিতে পারে এমন তথ্য দেওয়া হয়।
এরপর গুজবটি চীনের একটি সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করা হলে তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। তবে গুজব বন্ধের চেষ্টায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে চীনের গ্লোবাল টেলিভিশন নেটওয়ার্কের অফিসিয়াল ওয়েইবো অ্যাকাউন্টে একটি উদ্ধতি দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিড়াল এবং কুকুরের মতো পোষা প্রাণীর মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়ায় এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বরং সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস রোধে পোষা প্রাণীর সংস্পর্শে যাওয়ার পর নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করা উচিত।