ডেস্ক : গরু চুরির অপবাদে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র রফিকুল ইসলাম (১৩) কে।

গত শুক্রবারে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নেরর ধুমাইটারী গ্রামে এই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। রোববার রাতে সুন্দরগঞ্জ থানায় এ ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এব্যাপারে পুলিশ রানা মিয়া ও আব্বাস মিয়া নামে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে। নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরের নাম । সে উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের ধুমাইটারী গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

সুন্দরগঞ্জ থানা সূত্র জানায়, উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নেরর ধুমাইটারী গ্রামের রাজা মিয়ার গোয়াল ঘর থেকে এক গরু চুরি হয়। গরু চোর সন্দেহে পাশের বাড়ির রফিকুলকে ওই রাতেই ধরে নিয়ে যায় একই গ্রামের কয়েকজন। তারপর তাকে সারারাত গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে তারা।

পরদিন শনিবার সকাল ৯টায় রফিকুলকে স্থানীয় আফসার প্রামাণিকের বাড়িতে নিয়ে যায় তারা। এরপর হাত-পা বেঁধে তার উপর অমানবিক নির্যাতন চালায় তনু প্রামাণিক, তাজু প্রামাণিক, তুহিন প্রামাণিক, লেলিন প্রামাণিক, সাবু প্রামাণিক ও মুসা প্রামাণিক। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রফিকুলকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। পরে তাকে সুন্দরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করা হয়। রফিকুলের উপর নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি সবার নজরে আসে।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুলাহিল জামান জানান, এঘটনায় রফিকুলের বড় ভাই শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৩ জনের বিরুদ্ধে সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সব ধরনের আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।