সাব্বির হাসান, গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার গাবতলীতে বিলের কচুরিপানার নিচে থেকে যুবকের ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।
সোমবার সকালে উপজেলার নশিপুর ইউনিয়নের সোনাকানিয়া দহের আগালী থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় থানায় ১টি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত শামীম হোসেন কুমিল্লা জেলার দায়রা গ্রামের সাহাদত হোসেনের ছেলে।
জানা গেছে, কুমিল্লা জেলার দায়রা গ্রামের সাহাদত হোসেনের ছেলে শামীম হোসেন (২৪) জন্মের পর থেকেই বগুড়া গাবতলীর নশিপুর ইউনিয়নের নিজগ্রামে নানা আঃ সামাদ এর বাড়ীতে বসবাস করতো। মা বিদেশ এবং বাবা ঢাকার টঙ্গীতে চাকুরীর কারণে শামীম হোসেন নানার বাড়ীতে বেড়ে ওঠেন। শামীম হোসেন বর্তমানে তার মামা মহিদুল ইসলামের দাদন ব্যবসার টাকা পয়সা উত্তোলনের কাজ করতেন।
গত ৬নভেম্বর রাত অনুমান সাড়ে ৮টা থেকে শামীম হঠাৎ নিখোঁজ হন। নিখোঁজের পর শনিবার বিকেলে শামীমের মামা বাদী হয়ে থানায় একটি জিডি করেন। জিডির ৩দিন পর নিজগ্রাম থেকে মাত্র দেড় কিলোমিটার দূরে সোনাকানিয়া দহের আগালীতে এক কৃষক নিজের জমির কচুরিপানা পরিস্কার করতে গেলে কচুরিপানার নিচ থেকে শামীমের ক্ষতবিক্ষত লাশ বের হয়। পরে থানা পুলিশকে সংবাদ দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় শামীমের পিতা বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিজগ্রামের মোজাফ্ফর আলী আকন্দের ছেলে আতিকুর রহমান (১৭)নামের এক যুবককে থানায় আনা হয়েছে।
এ ব্যাপারে থানার ওসি নুরুজ্জামান স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। দ্রæত আসামী সনাক্ত করে হত্যার প্রকৃত কারণ এবং অপরাধীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।