সাব্বির হাসান গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার গাবতলী উপজেলার দক্ষিণপাড়া ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের কুখ্যাত মাদক সম্রাট বাকির দৌরাত্ব বেড়ে গেছে। তার দৌরাত্বে এলাকার শান্তিপ্রিয় নিরীহ কৃষক সমাজ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এলাকার কৃষক সমাজকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ভূমি আইন অমান্য করে কৃষি জমি কেটে পুকুর খননে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে ভূমি দস্যু বাকী। যার ফলে গোয়ালপাড়া মৌজার অর্ধশতাধিক বিঘা কৃষি জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে ফসল উৎপাদন হুমকির মুখে পড়েছে। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী গত ২৯জানুয়ারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন, উপজেলার দক্ষিণপাড়া ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের মৃত হাসেন আলী প্রাং এর ছেলে কুখ্যাত মাদক মহাজন আব্দুল বাকী প্রাং মাদক ব্যবসা করে সে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন। সেই সুবাদে গোয়ালপাড়া মৌজায় কৃষি জমির মাঝ মাঠে বিগত তিন বছর আগে একটি পুকুর খনন করেন। এই পুকুর খননের কারণে পশ্চিমপার্শ্বে প্রায় ৬০/৭০বিঘা ২ফসলী কৃষি জমির পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে যায়। যার ফলে জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে গত ৩বছর ধরে আমন ধান লাগানো সম্ভব হয় না। এছাড়াও ইরি বোরো মৌসুমে বৈশাখ মাসের শেষের দিকে প্রাকৃতিক দূর্যোগের ঝর ও বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন না হওয়ার কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে আধা পাকা ধান পানির উপর নুয়ে পড়ে নষ্ট হয়ে যায়। এতে করে প্রতিবছর চরম ক্ষতিরমুখে পড়তে হচ্ছে স্থানীয় নি¤œমধ্য বিত্ত কৃষকদের। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করে চাইলে মাদক স¤্রাট ও ভূমি খেকো বাকী ওই কৃষকদের গালিগালাজসহ বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দেয়। এমনকি নিজের পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে ভুক্তভোগী কৃষকদের নামে মামলা দিয়ে ফাঁসানোর ভয়ভীতি দেখায়। এ জন্য মাদক মহাজন বাকীর বিরুদ্ধে কেউ কথা বলার সাহস পায় না। ভূমি দস্যু বাকী পূর্বের পুকুরের পাশে নতুন করে আবারও পুকুর খনন শুরু করেছেন। বেকায়দায় ফেলে অন্যের জমি অল্প দামে ক্রয় করছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এ ব্যাপারে ইউএনও মোছাঃ রওনক জাহানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।