সাব্বির হাসান, গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার গাবতলীতে স্বামীর নির্যাতনে ঘাড় মটকিয়ে পারভীন আকতার (৩০)নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সকালে উপজেলার নেপালতলী ইউনিয়নের আকন্দপাড়া গ্রামে। ঘাতক স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
জানা গেছে, উপজেলার নেপালতলী ইউনিয়নের আকন্দপাড়া গ্রামের রাজমিস্ত্রী আব্দুল লতিফ সরদারের সঙ্গে প্রায় ১০মাস পূর্বে দূর্গাহাটা ইউনিয়নের ভূলিগাড়ী গ্রামের মৃত ওয়াহেদ আলী পাইকারের মেয়ে পারভীনের বিয়ে হয়। বিয়েটি ছিলো রাজমিস্ত্রী আব্দুল লতিফ সরদারের ৮নম্বর এবং পারভীন আকতারের ৩য় বিয়ে। বিয়ের পর থেকে তাদের মাঝে মধ্যেই ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার রাতে তাদের মধ্যে আবারও ঝগড়া হয়। এই ঝগড়ার কারণে আব্দুল লতিফ তার স্ত্রীকে শারিরীক নির্যাতন করে ঘাড় ভেঙ্গে দেয় বলে স্বজনরা অভিযোগ করেন। পরে ভোররাতে গুরুত্বর আহত পারভীন মারা যায়। মৃত্যু যন্ত্রনায় পারভীন ছটফট করলেও পাষন্ড স্বামী তাকে কোন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়নি বলেও অভিযোগ রয়েছে। ঘটনার পর থেকেই নিহত পারভীনের স্বামী লতিফ পলাতক থাকলেও সন্ধ্যারাতে এক সাড়াসি অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আব্দুল লতিফের বাবাকে আটক করা হয়েছিল। এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীনের বলেন, ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহত পারভীনের স্বামী আব্দুল লতিফকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে মৃত্যু প্রকৃত কারণ জানা যাবে।