সাব্বির হাসান, গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার গাবতলী উপজেলা আ’লীগের প্রয়াত সভাপতি এএইচ আজম খানের সহধর্মিনী ও উপজেলা চেয়ারম্যান ও বগুড়া পৌর আ’লীগের সভাপতি রফি নেওয়াজ খান রবিনের শ্বাশুড়ী ফেরদৌস আরা খানের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার বাদযোহর গাবতলী উপজেলার রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের জাগুলী গ্রামে নিজবাড়ীতে তার নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়। তার নামাজে জানাজায় অংশ নেন বগুড়া পৌর আ’লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান রফি নেওয়াজ খান রবিন, বগুড়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান শফিক, শাজাহানপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন সান্নু, জেলা আ’লীগের সদস্য এমরান হোসেন রিবন, বগুড়া পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু ওবাইদুর হাসান ববি, বগুড়া পৌর আ’লীগ নেতা শাহীন, এ্যাডোনিস তালুকদার বাবু, শেখ শামীম, মিজানুর রহমান বকুল, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুস সালাম ভূলন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক মিলু, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল গফুর, মিজানুর রহমান মিজান, জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোমিনুল হক শিলু ও নেপালতলী ইউপি চেয়ারম্যান এসএম লতিফুল বারী মিন্টু, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম মুক্তা, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মুঞ্জুরুল হক মুঞ্জু, রামেশ্বরপুর ইউপি চেয়ারম্যান সেকেন্দার আলী, নাড়–য়ামালা ইউপি চেয়ারম্যান গোফ্ফার আলী, দূর্গাহাটা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন মিঠু, সদর ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসাইন খান, মহিষাবান ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম, পৌর আ’লীগের সভাপতি আজিজার রহমান পাইকার, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিলুসহ উপজেলা ও পৌর, ইউনিয়ন আ’লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ এবং স্থানীয় মুসুল্লীবৃন্দ। উল্লেখ্য, ফেরদৌস আরা খান প্রথমে এজমা সমস্যা থেকে হার্টের সমস্যায় ভূগছিলেন। পরে তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এরপর তাঁকে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত মাসের ৯জুন ঢাকাস্থ বাংলাদেশ স্পেশালাইজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হলে ওই হাসপাতালেই আইসিইউতে একসপ্তাহ লাইফ সাপোর্টে থেকে একটু সুস্থ্য হয়। প্রায় একমাস চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৪জুলাই বিকেল পৌনে ৩টায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।