ডেস্ক :
আগামী ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপে ৬১টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণের দিন রেখে তফসিল ঘোষণা করেছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বুধবার ইসির সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর এ তফসিল ঘোষণা করেন।

ইসির সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর বলেন, এরমধ্যে ইভিএমের মাধ্যমে ২৯টি পৌরসভায় এবং ব্যালটের মাধ্যমে ৩২টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ২০ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাই ২২ ডিসেম্বর এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ ডিসেম্বর। আর ১৬ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। বর্তমানে দেশে ৩২৯টি পৌরসভা রয়েছে।

তফশিল অনুযায়ী ২ দফা ভোটের পৌরসভা গুলি হচ্ছে,
বগুড়ার শেরপুর ( ব্যালট), সারিয়াকান্দি (ইভিএম), সান্তাহার (ইভিএম), চট্টগ্রামের সন্দীপ (ব্যালটে),
সিরাজগঞ্জের কাজিপুর (ইভিএম), উল্লাপাড়া (ব্যালট), বেলকুচি (ব্যালট), সিরাজগঞ্জ (ব্যালট), রায়গঞ্জ (ব্যালট),
নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ (ব্যালট),
কুষ্টিয়া পৌরসভা (ব্যালট), মিরপুর (ব্যালট), ভেড়ামারা (ব্যালট), কুমারখালী (ইভিএম),
মৌলভিবাজারের কুলাউড়া (ব্যালট), কমলগঞ্জ (ব্যালট),
নারায়নগঞ্জের তারাব (ইভিএম),
শরিয়তপুর পৌরসভা (ইভিএম),
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী (ব্যালট),
গাইবান্ধা (ব্যালট), সুন্দরগঞ্জ (ব্যালট),
দিনাজপুর পৌরসভা (ব্যালট), বিরামপুর (ব্যালট), বীরগঞ্জ (ইভিএম),
মাগুড়া (ইভিএম),
ঢাকার সাভার (ইভিএম),
নওগাঁর নজিপুর (ইভিএম)
পাবনার ভাঙ্গুরা (ব্যালট), ফরিদপুর (ইভিএম), সাথিয়া (ব্যালট), সুজানগর (ব্যালট), ঈশ্বরদী (ব্যালট),
রাজশাহীর কাকনহাট (ইভিএম), ভবানীগঞ্জ (ব্যালট), আড়ানী (ইভিএম), সুনামগঞ্জ (ব্যালট), ছাতক (ব্যালট), জগন্নাথপুর (ইভিএম),
হবিগঞ্জের মাধবপুর (ব্যালট), নবীগঞ্জ (ব্যালট),
ফরিদপুরের বোয়ালমারী (ব্যালট),
ময়মনসিংহর ফুলবাড়ীয়া (ইভিএম), মুক্তাগাছা (ব্যালট),
নোয়াখালীর বসুরহাট (ইভিএম),
বাগের হাটের মোংলাপোর্ট (ইভিএম),
নাটোরের নলডাঙ্গা (ইভিএম), গোপালপুর (ব্যালট), গুরুদাসপুর (ব্যালট), পিরোজপুর (ইভিএম),
নেত্রকোনার কেন্দুয়া (ইভিএম),
মেহেরপুরের গাংনি (ইভিএম),
ঝিনাইদহের শৈলকুপা (ইভিএম),
খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার খাগড়াছড়ি (ইভিএম),
বান্দরবান পার্বত্য জেলার লামা (ব্যালট),
নীলফামারীর সৈয়দপুর (ইভিএম),
টাঙ্গাইল ধনবাড়ী (ইভিএম),
কুমিল্লার চান্দিনা (ইভিএম),
ফেনীর দাগনভূঞা (ইভিএম),
কিশোরগঞ্জ (ব্যালট), কুলিয়ারচর (ইভিএম),
নরসিংদীর মনোহরদী (ইভিএম)।

এদিকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সচিব জানান, ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণের বিষয়ে নির্বাচন কমিশন প্রাথমিক পর্যায়ে আলোচনা করেছে। এখানে তফসিল দেয়ার কোনও প্রয়োজন নেই। কেবলমাত্র ভোটের তারিখ ঘোষণা হবে। কমিশনের সিদ্ধান্ত হলে ভোটের তারিখ জানানো হবে। এক্ষেত্রে ডিসেম্বরের শেষ দিকে ভোট হতে পারে। তবে কোনও কারণে ডিসেম্বরে সম্ভব না হলে জানুয়ারিতে হবে।’