ডেস্ক :
ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করায় মামলার বাদিনি নন্দ রাণী মালী (৩৫) কে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলী।
মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) তিনি এ রায় প্রদান করেন।
রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এবং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের সরকারি বিশেষ কৌঁসুলি ফিরোজা চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এর আগেও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মিথ্যা মামলা করায় আদালত আরো ৩ বাদিকে ৫ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছিলেন। যাতে করে নারী ও শিশু নির্যাতনের মতো গুরুতর বিষয়ে কেউ হয়রানিমূলক মামলা দায়ের না করে।
দণ্ডপ্রাপ্ত নন্দ রাণী মালী জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের জিতেন চন্দ্র মালীর মেয়ে।

আদালত সূত্র জানায়, জেলার কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের আব্দুস সাত্তার মিয়ার ছেলে আবুল হাসনাতের (৩৬) বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ২১ এপ্রিল ধর্ষণের অভিযোগে কালাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন একই গ্রামের জিতেন্দ্রনাথ মণ্ডলের মেয়ে শ্রীমতি নন্দরানী (৩১)।
মামলার মঙ্গলবার ধার্য তারিখে বাদি মামলাটি আর চালাবেন না এবং মামলাটি মিথ্যাভাবে করা হয়েছে বিষয়টি আদালতকে জানায়। এ অবস্থায় আদালত ক্ষিপ্ত হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতনের মতো গুরুতর বিষয়ে হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করায় মামলার বাদী শ্রীমতি নন্দরানীকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৫ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।