প্রতিনিধি :

এনজিওর কিস্তির টাকা নিয়ে স্বামী- স্ত্রীর পারিবারিক ঝগড়ার জের ধরে স্ত্রী শেফালী বেগম (৪৫)নামের এক গৃহবধূকে জবাই এর পর কুপিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী এশারত আলী আকন্দ। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রতে ধুনট উপজেলার চৌকিবাড়ি ইউনিয়নের পাঁচথুপি-সরোয়া গ্রামে ওই ঘটনায় ঘাতক স্বামীকে গ্রফতার করেছে পুলিশ।

নিহতের ছেলে সেলিম হোসেন জানান, বাবা- মার অভাবের সংসার, তার উপরে দুজনই অসুস্হ।, তার বাবা বাশের তৈরী জিনিষপত্র বানিয়ে কোন রকমে সংসার চালাতো। করোনার সময় ব্যবসা ভালোভাবে না চলায় একটি এনজিও থেকে ১০ হাজার টাকা লোন নেয়। সপ্তাহে ৪ শ টাকা কিস্তি। কিছু টাকা পরিষোধ করলেও পরে আর কিস্তি দেয়া সম্ভব হয়নি। রোববারে ছিল কিস্তির টাকা জমা দেয়ার দিন। অভাবের সংসারে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। ঘটনার রাতে বাবা- মার ঝগড়া হয়। অনেক রাত পর্যন্ত জেগে থাকে তারা। মধ্যরাতে মার চিৎকার শুনে উঠে এসে দরজা ধাক্কা দিলেও বাবা দরজা না খুলে আমাকেও মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে প্রতিবেশীদের ডাকলে বাবা ঘড়ের বেড়া কেটে পালিয়ে যায়। ঘড় খুলে দেখি রক্তাক্ত অবস্হায় মা পড়ে আছে। জবাই করার পর কুপিয়ে হত্যার করা হয়েছে।

শেরপুর ও ধুনট সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান জানান, কিস্তির টাকা নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে রাতে জবাই এর পর ক্ষোভে মুখেও কোপানো হয়। আজ সকালে চান্দাইকোনা এলাকা থেকে এশারত আলী( ৫৫)কে গ্রেফতার করা হয়। সে হত্যার বিষয় স্বীকার করে।
মৃতদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করা করে মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।