নোতুন খবর.কম : মুজিব শতবর্ষে সামনে রেখে নতুন চেতনায় ও আগামীর সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যাশায় শেষ হলো লেখক, কবি, পাঠক, দর্শনার্থী, সাংস্কৃতিক কর্মী ও প্রকাশকদের মিলনমেলা। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বগুড়া ও জেলা প্রসাশনের সহযোগিতায় ১০ দিনব্যাপী বগুড়া বইমেলার শেষ দিনেও ছিল উপচে পড়া ভিড়। নানা আনন্দ ঘটনার জন্ম দিয়ে আর বিষাদের শুরে আগামীর দিনের আহবানে পর্দা নামলো বগুড়া বইমেলার। আর সেই সাথে নতুন আহবানে ভেঙ্গে গেল কবি সাহিত্যিকদের মিলনমেলা।
শনিবার সন্ধ্যায় বগুড়া বইমেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিতির বক্তব্য রাখেন বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও বগুড়া থেকে প্রকাশিত পাঠক প্রিয় পত্রিকা দৈনিক করতোয়া সম্পাদক মোজাম্মেল হক।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলা ভাষাকে প্রাণের মধ্যে গেঁথে এগিয়ে যেতে হবে। সারা বিশে^ বাংলা যেমন মর্যাদার আসন পেয়েছে তেমনি প্রতিটি বাঙালিকে বিশে^র দরবারে সম্মানের আসন গড়ে নিতে হবে। গড়তে উন্নত বাংলাদেশ। আমাদের আগামী প্রজন্মকে বা সন্তানদের বইমুখি করতে হবে। সাহিত্য ও সাংস্কৃতির সাথে আরো পরিচয় ঘটাতে হবে। নতুন লেখক, কবি ও সাহিত্যক সৃষ্টির জন্য সাহিত্য বিষয়ক পত্রিকা আরো সৃষ্টি করতে হবে। লিটিলম্যাগের মাধ্যমে নতুন লেখক কবি সৃষ্টির জন্য চেস্টা করে যেতে হবে। লিটিলম্যাগের মাধ্যমেই নতুন লেখক তৈরী হয়ে থাকে। সাহিত্যের শুরু হলো লিটিলম্যাগ। নতুন নতুন কবি সাহিত্যিক সৃষ্টিতে লিটিলম্যাগের বড় অবদান রয়েছে। আর সৃষ্টি হওয়া নতুন লেখই আগামীদিনে ভাল সাহিত্যিক হয়ে আমাদের সমাজে অবদান রাখবেন। জেলায় জেলায় আজ ভাষার চেতনা থেকে বইমেলার আয়োজন করা হচ্ছে। শিশুদের সু নাগরিক করে গড়ে তুলতে বই ও বইয়ের বিকল্প নেই। তাই আমাদের শিক্ষা অর্জনের পাশাপাশি জ্ঞান অর্জনে বই পড়তে হবে বেশি।
শেষ দিনে বইমেলায় পুন্ড্র সম্মাননা পদক প্রদান করা হয় একুশে পদক ও স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ড. এনামুল হককে। ড. এনামুল হক দেশের সংস্কৃতি বিকাশে ব্যাপক অবদান রেখেছেন। তার পক্ষে পদক গ্রহণ করেন ড. এনামুল হক আর্ট এন্ড কালচারাল একাডেমীর প্রধান নির্বাহি নজরুল ইসলাম। সমাজসেবা ও রাজনীতিতে বিশেষ অবদান রাখায় সাবেক এমপি আব্দুল মান্নান পদক তুলে দেয়া হয় বগুড়া জেলা পরিষদের চেয়াম্যান ডাঃ মকবুল হোসেনকে। অনুষ্ঠানে তাঁদের উত্তরীয় পড়ানো হয়। এই ছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারি প্রতিটি সংগঠনকে প্রদান করা হয় সনদ পত্র।
অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উপলক্ষ্যে বগুড়া সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ১০ দিনের বইমেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জোটের সভাপতি তৌফিক হাসান ময়না। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জোটের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সিদ্দিকী। সঞ্চালনা করেন জোটের দপ্তর সম্পাদক এইচ আলিম। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জোটের সহ সভাপতি মতিয়ার রহমান, গৌতম কুমার দাস, আসাদ হোসেন, সহ সাধারণ সম্পাদক এসএম বেলাল হোসেন, আলমগীর কবির, এড. মন্তেজার রহমান মন্টু, অর্থ সম্পাদক রবিউল আলম অশ্রæ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলে রাব্বী, প্রচার সম্পাদক লুবনা জাহান, নির্বাহী সদস্য আসাদুর রহমান খোকন, আব্দুল মোবিন জিন্নাহ, আব্দুল আউয়াল, জোটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবিএম জিয়াউল হক বাবলা, নান্দনিক নাট্যদলের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান চৌধুরী, লায়ন আতিকুর রহমান মিঠু, শ্যামল বিশ^াস, মির্জা আহসানুল হক দুলাল, দৌলতুজ্জামান দৌলতসহ বগুড়ার বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধি, কবি সাহিত্যিক, নাট্যকর্মী।
শেষ দিনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে বগুড়া শিশু নাট্যদল, বগুড়া পদাতিক, আমরা ক’জন শিল্পী গোষ্ঠি, থিয়েটার আইডিয়া ও সংশপ্তক থিয়েটার। এছাড়া গীতিচর্চা সঙ্গিতালয়ের আয়োজিত শিশুদের নিয়ে বর্ণমালা লেখা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয় শনিবার বিকাল ৫টায় শহরের জলেশ^রীতলায় সংগঠন কার্যালয়ে। এতে সভাপতিত্ব করেন পরিচালক তাপসী দে। শিশুদের দুটি শাখায় মোট ৩০টিরও বেশি পুরস্কার প্রদান করা হয়। শিশুদের নিয়ে বর্ণমালা লেখা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল গত ১৪ ফেব্রæয়ারি।