প্রতিনিধি :
বগুড়ার সারিয়াকান্দী উপজেলার যমুনা চর হাটশেরপুর ইউনিয়নের চরদিঘা পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এখন যমুনা নদীতে বিলিন হওয়ার পথে।
খোজ নিয়ে জানা যায় শেষ বন্যায় যমুনার পানি বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে যমুনার চরের ভাঙ্গনও বৃদ্ধি পেতে থাকে। গত কয়েকদিনে ভাঙ্গনের তীব্রতা বৃদ্ধি পেলে চরদিঘা পাড়ার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ও ভাঙ্গনে কবলে পড়ে।
হাট শেরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান জানান, চরদিঘা পাড়া গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভাঙ্গনের কবলে পড়ায় উপজেলা থেকে নিলামে দেয়া হয়েছে। ওই বিদ্যালয়ের ১৫০ শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। করোনা কালে এমনি বিদ্যালয় বন্দ ছিল তার উপরে বিদ্যালয় খুললে ওই শিক্ষার্থীরা কোথায় পড়ালেখা করবে তা নিয়ে চিন্তিত অভিভাবকরা।
চরদিঘা পাড়ার জসীম উদ্দিন জানান, তার ছেলেকে নিয়ে তিনি চিন্তিত। এখন কোথায় পড়ালেখা করাবে। অস্হায়ী ভাবে হলেও পড়ালেখার জন্য ঘড় তৈরীর দাবী জানান ওই অভিভাবক।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম কবির জানান, বিদ্যালয়টি ভাঙ্গনের কবলে পড়ায় ৫০ হাজার টাকায় নিলাম ডাকে দেয়া হয়েছে। পড়ালেখা সচল রাখতে ওই চরে অস্হায়ী ভিত্তিতে বিদ্যালয় করা হবে।