ডেস্ক :
ছয় দিনের মাথায় আরো একটি স্প্যান বসলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার কয়েক মিনিট আগে বসানো হয়েছে ৩৭তম স্প্যান। এতে করে দৃশ্যমান হয়েছে সেতুর ৫ হাজার ৫৫০ মিটার তথা সাড়ে ৫ কিলোমিটারের কিছু বেশি।
৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতল সেতুর ৪১টি স্প্যানের মধ্যে এখন বাকী থাকছে মাত্র ৪টি। পদ্মা সেতু কর্তপক্ষ জানিয়েছে, ডিসেম্বরের ১০ তারিখের মধ্যেই অপর ৪টি স্প্যান বসানো হবে। এর মধ্যে নভেম্বরে আরও ২টি স্প্যান স্থাপন করা হবে।

বেলা পৌনে ১১টায় কুমারভোগের কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে স্প্যানটি নিয়ে রওনা হয় ‘তিয়ান ই’ নামের ভাসমান জাহাজটি। ‘২-সি’ নামের স্প্যানটি খুঁটির কাছে পৌঁছে দেওয়ার পর শুরু হয় বসানোর প্রক্রিয়া।
অন্যদিকে ৬ নভেম্বর মাওয়া প্রান্তের ২ ও ৩ নম্বর খুঁটির ওপর ১-বি নামের ৩৬তম স্প্যানটি বসানো হয়েছিল। অক্টোবর মাসে ৪টি স্প্যান বসানো হয়েছে। নভেম্বরেও ৪টি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। অপর ২টি স্প্যান বসবে ডিসেম্বরে। বিজয় দিবসের আগেই আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সব স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে।
বাকী চারটি স্প্যানের মধ্যে ৩৮তম স্প্যান (স্প্যান ১-এ) বসবে ১৬ নভেম্বর ১ ও ২ নম্বর খুঁটিতে। ২৩ নভেম্বর ১০ ও ১১ নম্বর খুঁটিতে ৩৯তম স্প্যান (স্প্যান ২-ডি) বসবে, ২ ডিসেম্বর ১১ ও ১২ নম্বর খুঁটিতে ৪০তম স্প্যান (স্প্যান ২-ই) এবং ১০ ডিসেম্বর সর্বশেষ ৪১তম স্প্যান (স্প্যান ২-এফ) ১২ ও ১৩ নম্বর খুঁটির ওপর বসানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
বাংলাদেশের অন্যতম বড় প্রকল্প পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে। প্রথমে এর কাজ শেষ হওয়ার টার্গেট রাখা হয়েছিল ২০২০ সাল। পরে সেটা বাড়িয়ে নেওয়া হয় ২০২১ সালের জুন মাসে। সর্বশেষ এক ঘোষণায় অর্থমন্ত্রী বলেছেন, ২০২২ সাল নাগাদ শেষ হবে পদ্মা সেতুর কাজ। ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সেতুর আকৃতি হবে দোতলা।