সুদর্শন কর্মকার, সিংড়াঃ
নাটোরের সিংড়ায় পুন্ড্ররী আলীম মাদ্রাসায় নিয়োগের বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে পুন্ডরী আলীম মাদ্রাসায় প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন এর সভাপতিত্বে লিখিত বক্তব্য দেন উক্ত মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ হযরত আলী। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, সরকারি বিধি মোতাবেক উক্ত প্রতিষ্ঠানে কর্মচারী আয়া, কম্পিউটার ল্যাব অপেটার ও নিরাপত্তা কর্মী পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, প্রার্থী আবেদন এবং নিয়োগ পরীক্ষা ডি’জির প্রতিনিধি ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে গঠিত নিয়োগ বোর্র্ড মেধার ভিত্তিতে চুড়ান্ত প্রার্থী বাছাই ও ফলাফল প্রকাশ করেন। এখানে কোন রকম দূর্নীতি ও অনিয়ম হয় নাই। মুক্তিযোদ্ধা মারফত আলীর ছেলের বউ মোছাঃ কবিতা খাতুন চাকুরী পরীক্ষা উত্তীর্ণ হতে না পেরে সে এবং তার স্বামী মিঠু উদ্দেশ্য প্রণোদীত হয়ে মাদ্রাসার সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। তিনি আরো বলেন আমরা যাদেরকে নিয়োগ দিয়েছি তারা কেউ জামাত-বিএনপি’র রাজনীতির সাথে জড়িত নয় এবং অভিযোগকারী পরিবার মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে সকল সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছে। উক্ত নিয়োগে কোন প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নয়। এ বিষয়ে কোন প্রার্থী কোন প্রকার অভিযোগ করেন নাই।
মাদ্রাসার নিয়োগ বিষয়ে সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন বলেন পুন্ডুরী মাদ্রাসার নিয়োগের ব্যাপারে কোন অর্থ লেনদেন হয় নাই। মুক্তিযোদ্ধা মারফত আলীর ছেলে মিঠু ১৪/০৬/২০২১ইং তারিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে বক্তব্য দিয়েছে তা সত্য নয়। মুক্তিযোদ্ধা পরিবার হিসাবে মৃত মুক্তিযোদ্ধা মারফত আলীর বড় ছেলে মাসুদ সরকারি চাকুরীজীবি। তারা মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে খাস জমি বরাদ্দ করা হয়েছে। বাড়ী নিমার্ণের জন্য বিভিন্ন সময় সরকারি অনুদান পেয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা মারফত আলীর মৃত্যুর পর তার পরিবার নিয়মিত মুক্তিযোদ্ধা ভাতা পায়। যাদেরকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে তারা কেউ জামাত-বিএনপি’র রাজনীতির সাথে জড়িত নয়। তারা সকলেই আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করে। নিয়োগপ্রার্থী মোছাঃ তহুরা খাতুন বলেন, আমি কোন অর্থের বিনিময়ে নিয়োগ নেই নি আমার সে সামর্থ নেই। আমি নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছি এবং সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে নির্বাচিত হয়েছি। উক্ত প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত পুন্ডরী গ্রামের মোঃ আলমগীর হোসেন ও আব্দুস সালাম বলেন উক্ত নিয়োগে কোন অনিয়ম হয় নাই।
উক্ত প্রতিবাদ সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, উক্ত নিয়োগ বোর্ডের সদস্য মোঃ আসাদুজ্জামান, ০৪নং কলম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক মোঃ এমদাদুল হক, সহঃ সুপার মোঃ জহুরুল ইসলাম প্রমূখ।