সাব্বির হাসান গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার গাবতলীতে এক ইউপি চেয়ারম্যানের পরিত্যক্ত বাড়ীর বিছানার তোষকে আগুন লাগার ঘটনায় ১১জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দিয়ে প্রতিপক্ষদের ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, গাবতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসাইন খানের গ্রামের বাড়ী সারোটিয়া পুরানো বাড়ীর বিছানার পরিত্যক্ত তোষকে গত বৃহস্পতিবার রাতে অজ্ঞাত কারণে আগুন লাগে। এ ঘটনায় চেয়ারম্যান আলমগীর হোসাইন খান বাদী হয়ে গত শুক্রবার রাতে ১১জনকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীন, থানার ওসি সাবের রেজা আহম্মেদ, তদন্ত ওসি আব্দুল গণি এবং থানার এসআই আব্দুল হাই গতকাল শনিবার ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তবে একাধিকসূত্র জানিয়েছে, ১৭ফেব্রæয়ারী গাবতলীর লাঠিগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজে কমিটি গঠনকল্পে অভিভাবক সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনের পর সভাপতি হওয়ার পরিকল্পনায় রয়েছেন, চেয়ারম্যান আলমগীর হোসাইন খানের বড়ভাই একরাম হোসেন বাবলু। এই নির্বাচনকে বানচাল করা এবং প্রতিপক্ষদের ফাঁসানোর অপচেষ্টায় তোষকে অগ্নিসংযোগের এক ঘটনা সাজিয়ে ১১জনের নামে সাজানো এক মামলা দেয়া হয়েছে বলে ওইসূত্র জানায়। স্থানীয়রা জানান, চেয়ারম্যান আলমগীর হোসাইন খান বগুড়া শহরে বসবাস করেন। ঘটনার রাতেও শহরে ছিলেন। সেখানে চেয়ারম্যানকে হত্যার চেষ্টায় কেউ অগ্নিসংযোগ করেছেন-এই কথাটা আসলে ঠিক নয়। এ ব্যাপারে থানা পুলিশ জানায়, ঘটনাটি রহস্যজনক বলে মনে হচ্ছে। তবে আরও তদন্ত করে ঘটনার প্রকৃত রহস্য জানা যাবে।