নোতুন খবর.কম :
বগুড়া মাটিডালির গোধূলী আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কাজে জড়িত থাকার অপরাধে ৭ নারী ও ৫ পুরুষকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৭ জুলাই) দুপুরে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।
সদর থানার এসআই ওসমান আলী জানান, ‘৯৯৯’ এ ফোন পেয়ে এস আই জহুরুল ইসলাম ও সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বগুড়া শহরতলীর মাটিডালির গোধুলী আবাসিক হোটেলে অভিযান চালানো হয় সেখান থেকে অসামাজিক কাজে জড়িত থাকার অপরাধে ৭ নারী ও ৫ পুরুষকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় হোটেলের ম্যানেজার পালিয়ে যায়। গ্রেফতারকৃতদের আদালতে পাঠানো হবে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে খোরশেদ আলম ও রেহেনা নিজেদের স্বামী স্ত্রী দাবী করেছে। তাদেরকে প্রয়োজনীয় প্রমানপত্র নিয়ে আসতে বলা হয়েছে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো যানান, এই হোটেলে অনৈতিক কার্যকলাপ চলে। এটি আদালতকে জানানো হবে। এরপর আদালত যে নির্দেশ মিবে সেটাই পালন করা হবে।
গ্রেফতারকৃতরা হলো, সারিয়াকান্দির বাঁশগাড়ী এলাকার রেজাউল ইসলামের মেয়ে বৃষ্টি (২১), দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর অনন্তপুর এলঅকার মৃত আবুল কাশেমের মেয়ে কথা (২৫), মানিকগঞ্জের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে নদী (২৩), নন্দীগ্রামের বর্ষণ গ্রামের রেহেনা (৩৫), নারায়নগঞ্জের এ্যাপোলেঅর স্ত্রী মারিয়া আক্তার (২৫), গাবতলীর সরিষাবাটির আব্দুস সালেকের মেয়ে আখী (১৮), শাজাহানপুরের মাঝিড়া বানিহাটি এলাকার সাইদুল ইসলঅমের মেয়ে সুমাইয়া (২২)।
ছেলেদের মধ্যে, কাহালুর ওলাহালীর মৃত আফছার আলীর ছেলে জিয়াউর রহমান (২৮), শিবগঞ্জের ছোট বেলঘরিয়ার মৃত হামছের আলীর ছেলে ইব্রাহীম (৪২), ধুনটের বিশ্বগাছাররবিউল ইসলামের ছেলেখায়রুল ইসলাম (২৩), গাবতলীর হোসেনপুরের আমিনুল ইসলঅমের ছেলে রহিম (২০), সদরের বৌবাজারের মৃত নাছির উদ্দিনের ছেলে খোরশেদ আলম (৫৩)।