প্রতিনিধি:
বগুড়ার ধুনট উপজেলার বেড়েরবাড়ী গ্রামের ‘মেসার্স তিন ভাই ট্রেডার্স এন্ড সেমি অটোরাইচ মিল’ থেকে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ১০টাকা কেজির চাল সন্দেহে ১০০মন চাল জব্দ করা হয়েছে। নিমগাছী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নবাব আলী ওই রাইচ মিলের মালিক। একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হামিদ ওই গ্রামের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ডিলার। তাঁর বিক্রয় কেন্দ্র থেকে দরিদ্রদের নামে ২৩০টি সুবিধাভোগীর ভূয়া কার্ড জব্দ করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে ধুনট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল রনী র্যাবের সহযোগীতায় অভিযান চালিয়ে চাল ও কার্ডগুলো জব্দ করেন বলে তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ধুনট উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বলেন, নিমগাছী ইউনিয়নের বেড়েরবাড়ি গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে আব্দুল হামিদ খাদ্যবন্ধব কর্মসূচীর (১০টাকা কেজি চাল) চালের ডিলার। তাঁর আওতায় ৭১০জন দরিদ্র মানুষ ১০টাকা কেজি করে চাল ক্রয়ের সুবিধা পেয়ে থাকেন। গত ২০ সেপ্টেম্বর ৭১০জন দরিদ্র মানুষের জন্য তিনি ধুনট খাদ্য গুদাম থেকে ২১হাজার ৩০কেজি চাল উত্তোলন করেছেন। ওই চাল সোমবার তিনি দরিদ্র মানুষের মাঝে বিক্রি করছিলেন। সোমবার দুপুরে তাঁর বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন করা হয়। এসময় ৭১০জন উপকার ভোগীর মধ্যে ভূয়া হিসেবে ২৩০টি কার্ড জব্দ করা হয়েছে।

খাদ্য পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম আরও বলেন, এসময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই বিক্রয় কেন্দ্রের অদূরে মেসার্স তিন ভাই ট্রেডার্স এন্ড সেমি অটোরাইচ মিলের গুদামে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে ওই গুদামে থাকা ১০টাকা কেজি মূল্যের সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর চাল সন্দেহে ১০০মন চাল জব্দ করা হয়েছে।

ধুনট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল রনী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে জনৈক নবাব আলীর তিন ভাই ট্রেডার্স নামের একটি রাইচ মিলের গুদাম থেকে ১০টাকা কেজির চাল সন্দেহে ১০০মন চাল উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া আব্দুল হামিদ নামের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ডিলারের কাছ থেকে ২৩০টি ভূয়া কার্ড জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের পক্রিয়া চলছে।
নিমগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশীদ নবাব আলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্নসম্পাদক এবং আব্দুল হামিদ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বলে সতত্যা স্বীকার করেন।