নোতুন খবর.কম :
বগুড়ায় জোরপূর্বক জমি দখল করতে না পারায় আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করার পরেও ভূমি অধিগ্রহণে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানী করা হচ্ছে।
শনিবার বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে শেরপুর উপজেলার ইটালী গ্রামের আনোয়ার হোসেন ও মন্টু মিয়ার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ করেন ঐ গ্রামের মৃত মোমিন আকন্দের ছেলে মোঃ আলাউদ্দিন আকন্দ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আলাউদ্দিন বলেন পৈতৃক সূত্রে পাওয়া জমির খাজনা খারিজ করে তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ জমির ভোগ-দখল করে আসছিলেন। তার পৈতৃক জমি জোরপূর্বক দখল করার উদ্দেশ্যে ২০১৯ সালের ৩০ আগস্ট কতিপয় সন্ত্রাসী নিয়ে একই গ্রামের মৃত অভরসার ছেলে আনোয়ার হোসেন ও মৃত আমজাদ হোসেন এর ছেলে মন্টু মিয়া জমিতে স্থাপনা নির্মাণ করতে যায়। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ এর নিকট অভিযোগ করলে তিনি উভয় পক্ষকে জমির প্রমাণপত্র নিয়ে আসতে বলেন। কাগজ পত্র মূল্যায়ন করে চেয়ারম্যান তাদেরকে ঐ জমিতে যেতে নিষেধ করেন। ঐ রাতেই তারা পুনরায় স্থাপনা নির্মাণ করতে শুরু করলে তিনি থানায় অভিযোগ করেন। পরে থানায় বৈঠকে তারা জমির সঠিক কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হলে থানা পুলিশও তাদেরকে জমিতে যেতে নিষেধ করেন।
তারা থানা পুলিশের কাছ থেকে সঠিক কাগজপত্র নিয়ে আসার জন্য ১৫ দিনে সময় নেয়। এরই মধ্যে তারা আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেও তারা ক্ষান্ত হয়নি। সম্প্রতি ঐ জমি সরকার কর্তৃক অধিগ্রহণ এর নোটিশ প্রদান করলে তারা অধিগ্রহণ কর্তৃপক্ষের নিকটও হয়রানীমূলক মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছে। এ ছাড়া ঐ কুচক্রীরা তার কাছে টাকা দাবি করে আসছে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে তারা বিভিন্ন প্রকার হুমকী প্রদান করে আসছে। এতে আলাউদ্দিন পরিবার পরিজন নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় জীবন-যাপন করছেন। তিনি আনোয়ার হোসেন ও মন্টু মিয়ার সন্ত্রাসীদের বিচারসহ নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।