নোতুন খবর.কম :
গত ২৪ ঘণ্টায় বগুড়ায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ৮ জন ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ জুলাই) দুপুরে বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মৃত্যু বরণ করা ১৯ জনের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৮ জন ও উপসর্গে এদের মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ৫ জন, মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ১১ জন, টিএমএসএস হাসপাতালে ২ জন ও বাকি একজন নিজ বাড়িতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

করোনায় মৃতরা হলেন- গাইবান্ধা জেলার রেহানা (৯০), নওগাঁর মুসলেমা (৪০) ও রহমান সরকার (৬৩), জয়পুরহাটের মোর্শেদা (৪০), তবির (৬৮) ও বাবু (৩৫) এবং বগুড়া শিবগঞ্জের দুলাল (৮৫) ও আজাহার (৫০)। এদের মধ্যে আজাহার নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এছাড়া করোনার উপসর্গ নিয়ে একই সময়ে ১১জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে শজিমেকে ২ জন, মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ৮ জন এবং বাকি একজন টিএমএসএস হাসপাতালে মারা গেছেন।

ডা. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পিসিআর ল্যাবে ২৮৮ টি নমুনায় ৬৬ জনের, জিন এক্সপার্ট মেশিনে চারটি নমুনায় তিনজন পজিটিভ এবং অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় ২৫৯টি নমুনায় ৬০ জনের পজিটিভ এসেছে। এছাড়াও ঢাকায় পাঠানো ২১৭ নমুনার ফলাফলে ৯৩ জন পজিটিভ এসেছে। এছাড়া টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৪৮ টি নমুনায় ১৬জন করোনা পজিটিভ হন।

গত ২৪ ঘণ্টা ৮১০টি নমুনার নতুন আক্রান্ত হয়েছে ২৩৮জন। এর মধ্যে সদরের ১৭৭ জন, শেরপুরে ১১জন, দুপচাঁচিয়ায় ৯ জন, গাবতলীতে সাতজন, কাহালুতে সাতজন, সারিয়াকান্দিতে ছয়জন, ধুনটে ছয়জন, আদমদীঘিতে সাতজন, সোনাতলায় তিনজন, শাজাহানপুরে তিনজন এবং শিবগঞ্জে দুইজন আক্রান্ত হয়েছেন। বগুড়ায় এ পর্যন্ত ১৪ হাজার ৯৩১ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৩ হাজার ৮৩ জন। মৃত্যু ৪৩৭ জন।