নোতুন খবর.কম :

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে দুই পায়ের রগ কেটে দেয়া সাইফুল ইসলাম ওরফে শফিকুল মাস্টার (৫৫) নামে স্কুল শিক্ষক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।
শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

শফিকুল মাস্টার গাবতলী উপজেলার দুর্গাহাটা বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তিনি সারিয়াকান্দি উপজেলার ফুলবাড়ি ইউনিয়নের মাঝ বাড়ি গ্রামের মৃত হাই তুল্লাহ প্রমাণিকের ছেলে। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে ফুলবাড়ী ইউনিয়নের মাঝবাড়ি গ্রামের দক্ষিণ পাড়া তালদহ মাঠ থেকে তাকে দুই পায়ের রগ কাটা ও মাথায় আঘাত প্রাপ্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শফিকুল মাষ্টার বুধবার সকালে তার বগুড়া শহরের নারুলীর বাসা থেকে বের হয়ে দুর্গাহাটা বালিকা বিদ্যালয়ে যান। সারাদিন তিনি দুর্গাহাটা এলাকাতেই ছিলেন। রাতে তিনি আর বাড়ি ফিরেনি। বৃহস্প্রতিবার ভোরে মাঝবাড়ী গ্রামের কয়েকজন ব্যক্তি মাছ ধরতে যাওয়ার পথে তালদহ মাঠে কাঁচা রাস্তার উপর দু’পায়ের রগ কাটা এবং মাথায় আঘাত প্রাপ্ত শফিকুল মাষ্টারকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে।
সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গ্রামবাসীর সহায়তায় শফিকুল মাষ্টারকে উদ্ধার করে সারিয়াকান্দি উপজেলা স্বাাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ(শজিমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শুক্রবার সেখানেই মারা যান তিনি।
ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারি সারিয়াকান্দি থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মাহবুব হাসান জানান, স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে সংবাদ পেয়ে তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। তিনি অজ্ঞান থাকায় এই হামলার প্রকৃত কারণ এবং হামলাকারি দুর্বৃত্তদের সম্পর্কে তেমন কিছু জানা যায়নি। তবে তার স্বজন ও বিদ্যালয় এলাকায় খোঁজ নিয়ে অপরাধীদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।
মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক(এসআই) আব্দুল আজিজ মন্ডল ওই শিক্ষকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে তা পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।