নোতুন খবর.কম : সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮ এর নব-নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষকদের যোগদানের জন্য নির্ধারিত দিন ছিল গত ১৬ই ফেব্রুয়ারী রোববার। এজন্য জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় হতে নিয়োগকৃত শিক্ষকেরা নিয়োগপত্র পেয়েছিলেন। কিন্তু হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ থাকায় তারা যোগদান করতে পারেননি। বুধবার সকালে বগুড়া জেলার নিয়োগ প্রার্থীরা বগুড়ার সাতমাথায় সমাবেত হয়ে মানববন্ধন করেছেন। উক্ত মানববন্ধনে নিয়োগকৃত শিক্ষক সুদেব চন্দ্র সরকার, জাকির হোসেন, আব্দুল লতিফ সরকার, নাভানা নাজনীন, সালেহ উদ্দিন, অদিতি সরকার, সেতু খাতুন, রওনক জাহান, শারাবান তহুরা জানান, বগুড়ার ১২টি উপজেলায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে ১৫০ জনকে চূড়ান্ত ভাবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন। এজন্য তাদের নিয়োগ পত্র দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ নিয়োগে বাঁধা হয়ে দাড়ায়। নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকেরা তাদের বক্তব্যে বেশ কিছু দাবি উত্থাপন করেন। দাবি গুলো হল, অবিলম্বে নব-নিয়োগকৃত শিক্ষকদের দ্রæত যোগদান ও পদায়ন। যোগদান ১৬ই ফেব্রæয়ারী ২০২০ হতে কার্যকর করা। উক্ত মানববন্ধনে নিয়োগকৃত শিক্ষকদের সাখাওয়াত টগর, সোহাগ আলী, রেহেনা খাতুন, আব্দুল আলীম, দুলালী খাতুন, সিরাজুল ইসলাম ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধন শেষে নিয়োগকৃত শিক্ষক বৃন্দ জেলা প্রশাসক ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে স্মারকলিপি প্রদান করেন।