নোতুন খবর.কম : প্রাণভয়ে ঝুকিপূর্ণ জীবন যাপন করা এক মুক্তিযোদ্ধার কন্যা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। বুধবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে আদমদিঘীর ছাতুয়া গ্রামের মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন স্ত্রী মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে মোছাঃ জয়নব বিবি সংবাদ সম্মেলনের করেন। এতে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, স্বামী প্রাং ১১ বৎসর আগে প্রবাসে গমন করার পর আমি কন্যাকে বিয়ে দিয়ে ও শিশু পুত্র সন্তানকে ঢাকায় রেখে পড়ালেখা করানোর কারনে আমি বাড়িতে একাকী দিনাতিপাত করিতেছি। আমার একাকিত্বের সুযোগ নিয়া প্রতিবেশী স্বাধীনতা বিরোধী, রাজাকার মৃত মন্তাজ মিয়ার পুত্র নজরুল ইসলাম আমাকে বিভিন্ন সময় খারাপ প্রস্তাব দেয়। এর এক পর্যায়ে গত ০৬/০১/২০২০ তারিখে আমার শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। যার প্রেক্ষিতে আমি জেলা বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এ ১৪পি/২০২০ (আদমঃ) মামলা দায়ের করি যাহার তদন্তভার ইউ.পি চেয়ারম্যানকে দেয়া হয়। কিন্তু চেয়ারম্যান আসামীর দ্বারা মনগড়া প্রতিবেদন দাখিল করে। আসামীরা আমাকে উক্ত মামলা উঠিয়ে নেয়ার হুককি দিলে আমি বাদী হয়ে নজরুলসহ রবিউল, হাসিবুর ও মোস্তাফিজুর সহ অজ্ঞাতনামা ৩/৫ জনকে প্রতিপক্ষ করে আদালতৈ মামলা করি। গত ২৭/০২/২০২০ তারিখে জমি ক্রয়ের বায়নানামা সম্পাদন করার জন্য্য বগুড়া শহরের দিকে রওনা দিলে উক্ত আসামীগন পুনরায় আমাকে পথরোধ করে আটকে এলোপাথার ী মারপিট করে আমার কাছে থাকা ৩ লাখ টাকা, আমার পড়নে থাকা গহনা ছিনিয়ে নেয়। তারা আমাকে টানা হেঁচড়া করিয়া পড়নের কাপড় ছিড়িয়া বিবস্ত্র করিয়া শ্লীলতাহানী ঘটায়।
তিনি বলেন, বর্তমানে আমি প্রতিনিয়ত প্রাণভয়ে ঝুকিপূর্ণ জীবন যাপন করিতেছি। এমতাবস্থায় আমি মুক্তিযোদ্ধার কন্যা হিসাবে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনাসহ সুষ্ঠ বিচার প্রার্থনা করিতেছি এবং আমাসীদের সর্বোচ্চ সাজা কামনা করেন।