বাম গণতান্ত্রিক জোট বগুড়া জেলার উদ্যাগে আজ ১৪ জুলাই ২০১৯ বেলা ১২ টায় সাতমাথায় মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়৷ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বামা গণতান্ত্রিক জোটের বগুড়া জেলার আহ্বায়ক, গণসংহতি আন্দোলন বগুড়া জেলা সমন্বয়কারী আব্দুর রশীদ। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদ জেলা আহ্বায়ক এ্যাড, সাইফুল ইসলাম পল্টু, সিপিবি জেলা সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ফরিদ, বাসদ (মার্ক্সবাদী) জেলা নেতা আমিনুল ইসলাম। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন সিপিবি নেতা সন্তোষ পাল।

সমাবেশে সাইফুল ইসলাম পল্টু বলেন, সরকারের ভুলনীতি, দুর্নীত ও লুটপাটের দায় জনগণ নেবে না। বিইআরসি একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব হলো জ্বালানি বিষয়ে জনগণের উপর সরকার বা অন্য কেউ যাতে অযৌক্তিক, অন্যায় কোন কিছু চাপিয়ে দিতে না পারে, সে বিষয়ে জনগণের স্বার্থ দেখা। আইনে আছে গ্যাস ও বিদ্যুৎ কোম্পানিসমূহ লাভজনক অবস্থায় থাকলে কোন অবস্থায়ই দাম বাড়ানো যাবে না।

কিন্তু আমরা লক্ষ্য করছি যে বিইআরসি তার আইনী অবস্থান পরিহার করে জনগণের স্বার্থ না দেখে সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট ও ভুলনীতির সমর্থনে কাজ করে চলেছে। ৬টি গ্যাস বিতরণী কোম্পানির মধ্যে ১টি বাদে সবকটি লাভজনক অবস্থায় রয়েছে এবং ১টি সঞ্চালন প্রতিষ্ঠান লাভজনক থাকার  পরও সরকারি হুকুমে দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে যা জনগণের প্রতি বিইআরসির বিশ্বাস ঘাতকতার সামিল। দেশবাসীর প্রতিবাদ থাকা সত্ত্বেও এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে না যাওয়ায় একথা আজ স্পষ্ট যে সরকার গণতন্ত্র চর্চার ধারে কাছে নাই।  বিইআরসি তথা সকারের মূল্যবৃদ্ধির অযৌক্তিক-অন্যায় সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাতিল করা উচিত।“

 

আমিনুল ফরিদ বলেন, গত মার্চ মাসে অনুষ্ঠিত গণশুনানীতে বাসদ সহ বামপন্থী দল ও ভোক্তা সংগঠনের পক্ষ থেকে মূল্যবৃদ্ধির অযৌক্তিকতা তুলে ধরা হলে বিইআরসি তার কোন সদুত্তর দিতে পারেনি। অথচ সকল প্রকার যুক্তি ও ভোক্তা স্বার্থ অগ্রাহ্য  করে বিইআরসি আজ দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে যা ঐ প্রতিষ্ঠানের জনস্বার্থ বিরোধী অবস্থানকে তুলে ধরেছে। বিইআরসির মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা গণশুনানীকে গণ নাটকে পরিণত করেছে। তিনি বলেন, যে প্রতিষ্ঠান জনগণের স্বার্থ দেখার কথা ঐ প্রতিষ্ঠান যদি তা না করে সরকারের হুকুম তামিল করে, তাহলে ঐ প্রতিষ্ঠান থাকারও কোন যুক্তি নাই। তাই তিনি গণবিরোধী বিইআরসি বিলোপের দাবি জানান এবং মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ৭ জুলাই সারাদেশে হরতালের মাধ্যমে জনগণ এই মুল্যবৃদ্ধির বিরোধিতা করার পরও সরকার জবরদস্তিমুলকভাবে একই সিদ্ধান্তে অটল থাকাটা প্রমাণ করে সরকার কতটা গনবিরোধি।

 

সামাবেশে অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বলেন, অবিলম্বে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিল করার দাবি জানান এবং ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য দেশপ্রেমিক জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।