নোতুন খবর.কম :
বগুড়ায় অভিনব কায়দায় দিনে দুপুরে ফিল্মি স্টাইলে বাসার পানির সুইচ কোথায় বলে বাসায় ঢুকে দস্যুতার অপরাধে ৩ যুবককে গ্রেফতার করেছে সদর পুলিশ ফাঁড়ি। রবিবার শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতরা হলো, বগুড়া শহরের মফিজপাগলার মোড়ের লিটন শেখ @ বাঘা শেখের ছেলে শাহ আরিফ @ জনি শেখ (২৮), জলেশ্বরীতলার কালি মন্দির এলাকার আব্দুল কাইয়ুম ওরফে ওফার ছেলে সাইফুল্লাহ রুমন (৩৮), শাজাহানপুর উপজেলার ফুলতলার আবুল হোসেনের ছেলে আজাহারুল ইসলাম শান্ত (২৫)।

জানাযায়, গত ২৮ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১২ টায় বগুড়া শহরের জলেশ্বরীতলা (আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠ সংলগ্ন) প্রদ্যুত কুমার সাহার বাসায় কলিং বেল চাপলে প্রদ্যুত কুমারের স্ত্রী শোক্লা সাহা বাসার গেট খুলে দেয়। এসময় অজ্ঞাতনামা দুইজন তার স্ত্রীকে বলে আপনার বাসার পানির লাইনের সমস্যা আমরা ঠিক করতে এসেছি। আপনাদের বাসার পাইর সুইচ কোথায় বলেই তারা জোরপূর্বক বাসার ভিতরে ঢুকে দরজা লেগে দেয়। এক পর্যায়ে ওই দুইজন কোমড় থেকে ধারালো চাকু বের করে শোক্লা সাহাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা পয়সা, স্বর্ণালংকার সবকিছু বেরকরে দিতে বলে। নইলে জানে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। এঅবস্থায় বাসার মধ্যে আরো দুই জন লোক ঢোকে। এই চার জনের মধ্যে একজন তার ছেলে সুমন্ত সাহা (১৪) গলায় চাকু ধরে ভয়ভীতি দেখে চিৎকার-চেচামেচি করতে নিষেধ করে। এক পর্যায়ে তারা প্রদ্যুত কুমারের ঘরে থাকা ৪০ ইঞ্চি এলইডি টিভি, মোবাইল ফোন, চেইনমালা ছিনিয়া নিয়ে চলে যায়। এঘটনায় প্রদ্যুত কুমার বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, ধৃত আসামীরা কিশোর গ্যাংয়ের লিডার। তারা অল্প বয়সের ছেলেদেরকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখে শহরের জলেশ্বরীতলা, রহমাননগর, মালতিনগর, বউবাজার এলকাসহ বিভিন্ন এলাকায় চুরি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, খুন, ডাকাতী, মাদক পাচারসহ নানার রকম অপরাধ করে নেয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উক্ত ছিনতায়ের ঘটনায় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হুমায়ুন কবীর এর সার্বিক সহযোগীতায় সদর ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আবুল কালাম আজাদ এর নেতৃত্বে এস আই খোরশেদ আলম রবি, এএসআই মোঃ আলমাস আলী, এটিএসআই মোঃ শফিকুল ইসলাসসহ শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান করে রবিবার ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয় এবং ছিনতাইকৃত টিভি উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের একজন স্মিকারক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

অফিসার ইনচার্জ মোঃ হুমায়ুন কবীর বলেন, ঘটনার পর বিভিন্ন জায়গায় অভিযান করে উক্ত ৩ জন আসামীদেরকে ধৃত করা হয় এবং তাদের কাছ থেকে ছিনতাইকৃত সনি টিভি উদ্ধার করা হয়। ঘটনায় একজন পলাতক আছে, তাকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত আছে।