নোতুন খবর.কম :
ভিত্তি প্রস্তরের ২৪ বছরেও নির্মান করা হয়নি বগুড়া বনানিতে শহীদদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ। ভিত্তি প্রস্তরের ফলকটিতে ধুলো জমেছে। কিন্তু এখনও স্মৃতিসৌধের কোন কাজ হয়নি সেখানে। ২৪ বছরেও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের জন্য একটি স্মৃতিসৌধ নির্মান না হওয়াকে নিজেদের জন্য লজ্জার বলে মনে করছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী বগুড়াবাসীরা।

বগুড়া শহরের প্রবেশদ্বার পর্যটন মোটেলের সামনে শাপলা চত্তরের ঘেড়ার মাঝে ফলকটিতে লেখা রয়েছে মহান মুক্তিযুদ্ধের অমর শহীদদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ। ১৯৯৬ সালের ১৫ ডিসেম্বর বাংলায় ১৪০৩ সালের ১ পৌষ তারিখে ভিত্তি প্রস্তরটি স্থাপন করেন মহীদ জননী খোদেজা খাতুন। ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের ২৪ বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত স্মৃতিসৌধ নির্মান কাজ শুরু হয়নি।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ বগুড়া জেলা ইউনিটের সাবেক সাংগঠনিক কমান্ডার সাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোত্তালেব মানিক মানিক বলেন, আমরা জীবন বাজিরেখে যুদ্ধ করেছি। এদেশকে স্বাধীন করেছি। আমাদের অনেকেই দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন। যারা জীবন দিয়ে আমাদেরকে একটি লাল সবুজ পতাকা, স্বাধীন মানচিত্রের একটি পরিচয় দিয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধে অমর শহীদদের স্মরণে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন হওয়া একটি স্মৃতি সৌধ নির্মানেই যদি ২৪ বছর লাগে তাহলে কষ্টের বিষয় ছাড়া আর কিছুই বলার থাকেনা। এখনও হয়নি ভেবেই লজ্জা পাচ্ছি।
সদর থানা ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার নুরুল আমিন ফুলমিয়া বলেন, ওই অনুষ্ঠানে আমিও ছিলাম। অনেক জাকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠান হয়েছিলো। আমরা আশা করছি বিষয়টি দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে।

এবিষয়ে বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি টি জামান নিকেতা বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্মরণে একটি স্মৃতি সৌধ নির্মান করতে এতদিন লাগবে কেন? বিষয়টি আমার জানাছিলোনা। আমি খবর নিয়ে দেখবো কেন এটি এখনও বাস্তবায়ন হলোনা।