নোতুন খবর.কম : ভুমিগ্রাসী এক কথিত জামায়াত নেতার ভুমি আগ্রাসন থেকে বাঁচতে বগুড়ার কাহালু উপজেলা সদরের সাগাটিয়া গ্রামের আমেনা বেওয়া নামের এক মহিলা তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন বগুড়া প্রেসক্লাবে ।
রবিবার দুপুরে এই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন , শিল্পী কনস্ট্রাকশন নামের একটি হাউজিং কোম্পানির কাছ থেকে পাওয়ার অব এ্যাটর্নি নিয়ে ফকরুল ইসলাম নামের ওই নেতা বসতবাড়ি সহ তাদের মালিকানাধীন ৯০ শতক , একই এলাকার খাস হওয়া ২০০ শতক সহ মোট ৪৭৭ শতক জমি গ্রাসের জন্য উঠে পড়ে লেগেছে ।ওই জামায়াত নেতার চক্রান্তে তাদের পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে কাহালু থানায় মোট ৬টি মামলা দায়ের করে হয়রানি পেরেশানি করছে । শিল্পী কনস্ট্রাকশন হাউজিং এর সাথে জায়গা জমি নিয়ে চলা মামলা গুলো বর্তমানে হাইকোর্টে বিচারাধিন । তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট বিবাদমান জায়গার ওপর স্থিতাবস্থার নির্দেশনা দিয়েছে । এই স্থিতাবস্থার বিরুদ্ধে শিল্পী কন্স্ট্রাকশন কর্তৃপক্ষ সুপ্রিম কোর্টে গেলে সুপ্রিম কোর্ট তাদের আবেদন সরাসরি নামঞ্জুর করেছে ।ফলে আদালতে ব্যর্থ হয়ে তারা এখন গায়ের জোরে ও রাতের আঁধারে তাদেও মালিকানাধীন জমি ট্রাক দিয়ে মাটি ভরাট কওে জবর দখলের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে ।সংবাদ সম্মেলনে আমেনা বেওয়া প্রধান মন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়ে বলেন , দেশে এখন স্বাধীনতার স্বপক্ষের সরকার রয়েছে । অথচ তারপরও একজন জামায়াত নেতা কিভাবে ভুমি দস্যুতা করে অসহায় মানুষদের বসতবাড়ি ও জায়গা জমি দখলে নিচ্ছে তা’ তিনি বুঝতে পারছেননা ।