নোতুন খবর.কম : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক বলেছেন, মমতাজ উদ্দিন ছিলেন আওয়ামী লীগের দুর্দিনের নেতা। ৭৫’র ১৫ আগস্টের পর তিনি প্রতিক‚ল পরিবেশে বগুড়ায় আওয়ামী লীগের হাল ধরেছিলেন। মমতাজ উদ্দিন কখনও আওয়ামী লীগের বাইরে রাজনীতি করেন নি। ছাত্রলীগ থেকে শুরু করে মৃত্যুর আগ দিন পর্যন্ত তিনি ছিলেন বঙ্গবন্ধু এবং শেখ হাসিনার একনিষ্ঠ কর্মী। বগুড়ার সকল রাজনৈতিক ইতিহাস ছিল মমতাজ উদ্দিনের দখলে। বগুড়ায় প্রথম স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলনকারী, সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহŸায়ক, মহান মুক্তিযুদ্ধে বগুড়ার কমান্ডার, স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদের আহŸায়ক, বিএনপি-জামায়াত জোটের বিরুদ্ধে ১৪ দলীয় জোটের বগুড়ার সমন্বয়ক এসব ছিল তার রাজনৈতিক দুরদর্শীতার ফসল। তিনি একটানা ৩৬ বছর বগুড়ার আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ছিলেন। দলের প্রতি নিষ্ঠা এবং একগ্রতার কারণে তিনি সবসময় বগুড়ায় আওয়ামী লীগের মূল নেতা হিসেবে পরিগণিত হতেন। বগুড়ার যে কোন সিদ্ধান্ত জননেত্রী শেখ হাসিনা তার পরামর্শের আলোকেই গ্রহণ করতেন। এই অকৃত্রিম অভিভাবকের প্রস্থান বগুড়ার আওয়ামী লীগ চিরদিন স্মরণ রাখবে। সোমবার বিকেল ৪ টায় বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শহীদ খোকন পার্কে মুক্তিযোদ্ধা মমতাজ উদ্দিনের স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলি বলেন। স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু। বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপুর সঞ্চালনায় স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মকবুল হোসেন, রাকসুর সাবেক ভিপি হায়দার আলী, টি জামান নিকেতা, টি এম মুসা পেস্তা, এড. আব্দুল মতিন, এড. আমানুল্লাহ্্, শাহ্্ আব্দুল খালেক, সাগর কুমার রায়, আসাদুর রহমান দুলু, প্রদীপ কুমার রায়, এড. তবিবর রহমান তবি, মুনসুর রহমান মুন্নু, এড. জাকির হোসেন নবাব, শেরিন আনোয়ার জর্জিস, এড. শফিকুল আলম আক্কাস, আনিছুজ্জামান মিন্টু, অধ্যক্ষ শাহাদৎ আলম ঝুনু, এস এম রুহুল মোমিন তারিক, এস এম শাজাহান, এবিএম জহুরুল হক বুলবুল, মাশরাফী হিরো, আলরাজী জুয়েল, তপন চক্রবর্তী, আবুল কাশেম ফকির, এড. মন্তেজার রহমান মন্টু, আবু সুফিয়ান সফিক, তালেবুল ইসলাম তালেব, আব্দুল মান্নান, মাফুজুল ইসলাম রাজ, আব্দুর রাজ্জাক মিলু, ওবায়দুল হাসান ববি, আব্দুস সালাম ভুলন, রফিকুল ইসলাম রফিক, অধ্যক্ষ খাদিজা খাতুন শেফালী, আব্দুস সালাম, শুভাশীষ পোদ্দার লিটন, সাজেদুর রহমান শাহীন, আমিনুল ইসলাম ডাবলু, মঞ্জুরুল হক মঞ্জু, ডালিয়া নাসরিন রিক্তা, নাইমুর রাজ্জাক তিতাস, অসীম কুমার রায়, রাশেদুজ্জামান রাজন প্রমুখ। সভার শুরুতেই মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন ও বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়। এর আগে বেলা ১১টায় মরহুমের কবর জিয়ারত এবং টেম্পল রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে কোরআন খতম করা হয়।