নোতুন খবর.কম : র‌্যাব তার প্রতিষ্ঠা লগ্ন হতেই খুন, অপহরণ, জঙ্গীদমন, ছিনতাই, চাঁদাবাজ, চুরি, অবৈধ মাদক ব্যবসা ও চোরাচালানসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধ করাসহ দূস্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে অপরাধ নির্মূলে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে আসছে এবং র‌্যাব-১২ এর সিপিএসসি, বগুড়া ক্যাম্পের আওতাধীন এলাকাগুলিতে ব্যাপকভাবে সফলতা অর্জন করেছে। গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধিসহ সার্বক্ষনিক অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব ইতিমধ্যে জনগনের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে।
গত ১২ জুলাই ২০১৯ তারিখ অপ্রাপ্ত বয়স্ক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মেয়েকে ফুসলাইয়া বিয়ের প্রলোভন দিয়ে মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন (৩০) পিতা মোঃ আয়েজ মন্ডল, নন্দীগ্রাম, বগুড়া তার বাড়ীতে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন পূর্বক ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে। এসময় ভিকটিমের কান্না ও চিৎকারের আওয়াজ শুনে আশেপাশে থাকা লোকজন তাকে উদ্ধার করে। ঘটনাটি জানাজানি হলে ধর্ষক মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন (৩০) অতি দ্রæত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে আত্মগোপনে যায়। এই ঘটনায় ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম থানায় গত ১৮ জুলাই ২০১৯ তারিখে মামলা দায়ের করে। উক্ত ঘটনার সাথে সাথে র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া ক্যাম্প অভিযুক্ত আসামী মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন’কে দ্রæত গ্রেফতার করতে গোয়েন্দ তৎপরতা শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ১৯ জুলাই ২০১৯ তারিখে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ০০.৩০ ঘটিকায় র‌্যাব-১২, সিপিএসসি বগুড়া ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল বগুড়া জেলার আদমদিঘী থানাধীন কুন্দগ্রাম-কুশবাড়ীগামী রাস্তার উপর অভিযান পরিচালনা করে মূল আসামী মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
র‌্যাবের এ ধরনের চাঞ্চল্যকর অপরাধ বিরোধী আভিযানিক কার্যক্রম চলমান থাকবে এবং ভবিষ্যতে আরো জোরদার করা হবে। আইন শৃংখলা বাহিনীর এ ধরনের তৎপরতা বাংলাদেশকে একটি অপরাধমুক্ত দেশ হিসাবে গড়ে তুলতে পারবে বলে আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।