নোতুন খবর.কম : জাতীয় শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব কে এম আজম খসরু বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে দুর্নীতিমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। তিনি দুর্নীতি আশ্রয় প্রশয় দেন না, দুর্নীতীর বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছেন। তিনি দেশকে ভালবাসেন এবং অন্যায়কারীদেরকে ঘৃণা করেন। আর এই জন্য প্রধানমন্ত্রী আগে নিজ দলের মধ্যে শুদ্ধি অভিযান চালিয়েছেন। যারা দুর্নীতির সাথে জড়িত আছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়েছেন। তিনি এসময় আরো বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশকে লাল সবুজ পতাকা এনে দিয়েছেন। জীবনকে বাজি রেখে দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে দেশের কল্যানে এবং এদেশের জনগনের কল্যানে দেশকে পরাধীনতার শিকল থেকে মুক্ত করতে পাকিস্থানী হায়েনাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছিলেন। শুধুমাত্র তার জন্যই আজ বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশে পরিনত হয়েছে, লাল সবুজের পতাকা উড়াতে পারছে। এবং এই দেশের মানুষ আজ একটি স্বাধীন দেশের পতাকা বহন করতে পারছে। সোমবার বিকালে শহরের তিনমাথা রেলগেট যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মাঠে জাতীয় শ্রমিকলীগ যুব-কমিটি বগুড়া জেলা শাখা আয়োজিত প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরন বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথ্গাুলো বলেছেন। জাতীয় শ্রমিকলীগ যুব-কমিটি বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি রাকিব উদ্দিন প্রাং সিজারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি আরো বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নে বিশ্বাস করেন, তাই আজ বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। পদ্মা সেতু যখন আমাদের দেশের মানুষের কল্পনার বাহিরে ছিল এখন সেখানে শেখ হাসিনার দৃঢ়তায় পদ্মা সেতু আজ দৃশ্যমান। পৃথিবীর কোথাও বিনামুল্যে বই বিতরন করা হয় না কিন্তু আমাদের দেশেই শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামুল্যে বই বিতরন করা হয়। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট ভুক্ত করেছেন। বিএনপি সর্ম্পকে তিনি বলেন বিএনপি এখন মিথ্যাচারের দলে পরিনত হয়েছে। তারা নির্বাচনে পরাজিত হয়ে ভোটচুরির মিথ্যা কাহিনী সাজিয়েছে। আসলে জনগন তাদেরকে চায়না বলেই প্রতিটি ভোটে তাদের ভরাডুবি হয়। সিটি নির্বাচনে পরাজিত হয়ে তারা হরতাল ডেকেছিল কিন্তু এদেশের মানুষ হরতালকে ঘৃণাভরে প্রথ্যাখান করেছে। তিনি বগুড়ার মাটিকে আওয়ামীলীগের ঘাটিতে পরিনত করতে নেতাকর্মীদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান। জাতীয় শ্রমিকলীগ যুব-কমিটি বগুড়া জেলার সাধারন সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রহিতের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সাগর কুমার রায়, ধুনট উপজেলা আ’লীগের সভাপতি টিআইএম নুরুন্নবী তারিক, জেলা শ্রমিকলীগের সাধারন সম্পাদক সামছুদ্দিন শেখ হেলাল, জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুর মান্নান আকন্দ, জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ডাবলু, জেলা শ্রমিকলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আলহাজ আব্দুল গফুর প্রাং। আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন বগুড়া আঞ্চলিক শ্রম অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আলমগীর কুমকুম, জেলা মিক্ষা অফিসার হযরত আলী, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ পরিচালক শ্রী বিরাজ চন্দ্র। এসময় প্রধান অতিথির সফরসঙ্গী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আলোকিত সমাজ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক এমদাদুল হক সুজন, সোহরার্দি হাসপাতাল সিবিএ’র সভাপতি আব্দুল মান্নান বিশ্বাস, জাতীয় শ্রমিকলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর এর যুগ্ন সাধারন সম্পাদক এ এইস মনির, যুব কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য বিল্লাল হোসেন মিরদা, শ্রমিকলীগ নেতা কালু শেখ, নজরুল ইসলাম রাজু, আজিজ দেওয়ান, পলাশ, হামিদুল ইসলাম, আবুল কালাম আজাদ, শরিকুল ইসলাম, রইস উদ্দিন, বাইরুন, শফিকুল ইসলাম। উক্ত অনুষ্ঠানে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ এবং জাতীয় শ্রমিকলীগ বগুড়া জেলা শাখার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও যুব কমিটির উপজেলা, শহর ও জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।