নোতুন খবর.কম :
বগুড়া উত্তর চেলোপাড়ার দাদন ব্যবসায়ী বানিজার ও তার বড়ভাইদের অত্যাচার নিপিড়ন ও দাদন ব্যবসার হাতথেকে এলাকাবাসীদের রক্ষার জন্য জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের প্প্রতি আহবান জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে বগুড়া উত্তর চেলোপাড়া এলাকার রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রোকসানা বেগম সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন,
ওই এলাকার মৃত ফরহাদ আলীর ছেলে বারেক রহমানের ভাই বানিজার রহমান সপ্তাহে ২ হাজার টাকা করে সুদ দেয়ার নিমিত্তে ২০০৫ সালে বিউটি খাতুনকে ৬০ হাজার টাকা দেয়। বিউটি ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা দেয়ার পরে আর দিতে ব্যর্থ হয়।
পরবর্তীতে ২০১৮ সালে ৫ লাখ টাকা পাবে দাবীকরে বিউটি খাতুনকে বিবাদী করে মামলা করে।
এদিকে রোখসানা বানিজারের করা সমিতিতে ১৫০ টাকা করে প্রতিদিন জমা করে আসছিল। সমিতিতে ১৪ হাজার টাকা জমা হওয়ার পর সেই টাকা দিতে বললে বানিজার তাল বাহানা করে।
এক পর্যায়ে গত ১৮ আগস্ট টাকা দেয়ার কথাবলে বাড়িতে ডেকেনিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। এঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালত থেকে মামলাটি তদন্ত দেয়া হলেও অজ্ঞাত কারণে পুলিশ তদন্ত করছেনাা।
রোকসানা বলেন, দাদন ব্যবসায়ী বানিজার বিভিন্ন জনকে দাদনে টাকাদিয়ে সাদাস্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। পরে ওই স্ট্যাম্পে ইচ্ছামত টাকার অংক বসিয়ে মামলা করে।

কিছুদিন আগে উত্তর চেলোপাড়ার মৃত আজাদের স্ত্রী জোস্না বানিজারের কাছেথেকে সুদে টাকা নেয়ার পর মারাযায়। জোস্না মারা যাওয়ার পর বানিজার পাওনা টাকা আদায়ে তার লাশ আটকে দেয়। পরে জোস্নার পরিবারের লোকজন ৪ হাজার টাকাদিলে সে জানাযা পড়ানোর অনুমতি দেয়।