নোতুন খবর.কম : খালেদা জিয়া-তারেক রহমান মুক্তি পরিষদ এর বগুড়া জেলা কমিটি কেন্দ্রের অনুমোদিত কমিটি। এই কমিটির কার্যক্রমও বহাল থাকবে। এইমর্মে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম রতন ও সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মোঃ আরিফুর রহমান মোল্লা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, পছন্দের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক নেই বলে বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক কতৃক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পরিষদের বগুড়ার কমিটি নিয়ে যে ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে তা ন্যাক্কারজনক ভাষা। কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ এতে মর্মাহত হয়েছে। তার এমন ভাষা প্রয়োগে তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এমন কুরুচিশীল ভাষায় দলের জন্য মারাত্মক ক্ষতি সাধন হতে পারে। ভবিষ্যতে সাবধানতা অবলম্বন করতে বলা হচ্ছে।
নেতৃবৃন্দ জানান, খালেদা জিয়া-তারেক রহমান মুক্তি পরিষদ গঠন হয়েছে ১/১১ (২৮ সেপ্টেম্বর২০০৭) সেনা সমর্থিত সরকারের সময় তৎকালীন বিএনপির মহাসচিব ও সিনিয়র নেত্রীবৃন্দের নির্দেশক্রমে। সেনা সমর্থিত সরকার বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে গ্রেফতার করার পর খালেদা-জিয়া তারেক রহমানকে মুক্ত করার আন্দোলন গড়ে তুলতে পরিষদ সক্ষম হয়েছে। তা আজো অবদি খালেদা জিয়া-তারেক রহমান মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। বগুড়া জেলা খালেদা জিয়া-তারেক রহমান মুক্তি পরিষদ কার্যক্রম চলবে। তাদের বিরুদ্ধে কু-রুচিপূর্ণ মন্তব্য না করার জন্য আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।