সাব্বির হাসান, গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ

বগুড়ার গাবতলীতে খালু হয়ে ১৫বছরের এক ভাগ্নিকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ৬আগষ্ট দুপুরে উপজেলার দূর্গাহাটা ইউনিয়নের গড়েরবাড়ী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, গাবতলীর দূর্গাহাটা ইউনিয়নের ঠাকুরবেরপাড়া গ্রামের তছলিম প্রামানিকের ছেলে মুনজু প্রামানিক গত ১২বছর আগে একই ইউনিয়নের গড়েরবাড়ী গ্রামের মৃত দলু আকন্দের মেয়ে ডলি বেগমকে পারিবারিক প্রস্তাবে বিয়ে করে। মৃত দলু আকন্দের কোন পুত্র সন্তান না থাকায় বিয়ের পর থেকেই মুনজু প্রামানিক তার শশুর বাড়ীতেই বসবাস করতে থাকে। সংসার জীবনে মুনজু ১ছেলে ও ১মেয়ের বাবা হয়। এরপরেও মুনজু প্রামানিকের লুলুপ দৃষ্টি পড়ে যায় ওই বাড়ীতে থাকা জেষ্ঠ শালিকার মেয়ে ১৫বছরের কিশোরী স্থানীয় দূর্গাহাটা বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আকতারের (ছদ্মনাম) উপর। এরই এক পর্যায়ে গত ৬আগষ্ট দুপুরে সুমাইয়া আকতারের মা বাড়ীর পার্শে¦ গরুর গোবর শুকাতে গেলে বাড়ীতে কেউ না থাকার সুযোগে মুনজু প্রামানিক ভাত খাবার কথা বলে ঘরে ঢুকে ভাগ্নি সুমাইয়াকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
এ ঘটনায় ভূক্তভোগীর মা বেওলা বেগম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।
এ ব্যাপারে গাবতলী মডেল থানার ওসি মোঃ নুরুজ্জামান বলেন, এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ আমরা হাতে পেয়েছি। ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ৯অক্টোবর বগুড়ায় প্রেরণ করা হবে। অভিযুক্ত মুনজু প্রামানিককে গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালানো হচ্ছে।