নোতুন খবর.কম :
বগুড়া পৌরসভার উন্নয়নে ৩৫ দফা কর্ম পরিকল্পনা ঘোষনা করেছেন বিএনপি মনোনিত কাউন্সিলর প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশা। এবারের নির্বাচনে তিনি ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করছেন।
মঙ্গলবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই পরিকল্পনার কথা ঘোষনা করেন।
পরিকল্পনায় রয়েছে:
১। মহান মুক্তিযুদ্ধের সুবর্ণ জয়ন্তীতে বগুড়া পৌর পার্কে মুক্তিযুদ্ধ “ও মুক্তিযুদ্ধে বগুড়ার” অবদান স্মরণীয় করতে “স্বাধীনতা চত্তর” নির্মাণ।
২। বগুড়া পৌরবাসীর জন্য নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে পৌর কার্যালয়ে ‘ওয়ান স্টপ’ সার্ভিস প্রবর্তন। যার মাধ্যমে জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন, নাগরিক সনদ, ট্রেড লাইসেন্স, ওয়ারিশন সনদ সহ সকল লাইসেন্স ইত্যাদি দ্রুততার সাথে প্রদান নিশ্চিত করা।
৩। ট্যাক্স বৃদ্ধিনয়-ব্যয়হ্রাস আর দূর্নীতিমুক্ত করে গতিশীল পৌর ব্যবস্থা নিশ্চিত করা।
৪। পুরো শহরকে সারা বৎসর মশক মুক্ত রাখার জন্য নিয়মিত মশক নিধনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
৫। শহরের সমস্ত সড়কে রাত্রিকালীন আলোর ব্যবস্থা নিরবিচ্ছিন্ন রাখা।
৬। শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার ড্রেন সমূহ স্লাব এর ব্যবস্থা করে ফুটপাত করা হবে, প্রয়োজনীয় সংখ্যক নতুন ড্রেন নির্মাণ এবং সকল ফুটপাত সমূহ চলাচলের উপযোগী রাখতে মনিটরিং এর ব্যবস্থা করা ও সংস্কার করা।
৭। পর্যাপ্ত সংখ্যক পাবলিক টয়লেটের ব্যবস্থা করা।
৮। ‘দিনের বর্জ্য, রাতে সাফ’ নীতিতে দ্রুততার সাথে সকল আবর্জনা অপসারণ।
৯। যানজট নিরসনের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যে পৌর পরিবহন সার্ভিস প্রবর্তন।
১০। ছুটির দিনেও সেবা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য জরুরী সেবা ও হট লাইনের প্রবর্তন করা ।
১১। ফতেহ আলী, রাজা বাজারসহ পৌর হাট বাজার গুলোকে সকল সুবিধাসহ বহুতল আধুনিক মার্কেটে পরিণত করা।
১২। প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া।
১৩। গাড়ি ও মোটর সাইকেলের জন্য নিরাপদ পার্কিং ব্যবস্থা নিশ্চিত করা।
১৪। মসজিদ-মাদ্রাসা-এতিমখানা-মন্দির-গির্জার উন্নয়ন, কবরস্থান-শ্মশানের সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়ন করা ।
১৫। একটি ফুটবল ষ্টেডিয়াম নির্মাণে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে এবং জনগণের সহায়তায় একাধিক খেলার মাঠ ও পার্ক নির্মাণের ব্যবস্থা করা।
১৬। বগুড়া পৌরসভায় বর্ধিত ওয়ার্ড সমূহের নাগরিক সুবিধা সম্প্রসারণের জন্য স্বল্প-মধ্যম ও দীর্ধ মেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়ন এবং কাঁচা রাস্তা ও ড্রেনগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পাকা করা।
১৭। বগুড়া শহরের সাতমাথা, থানারোড, বাদুড়তলা, চকসূত্রাপুর, দক্ষিণ আটাপাড়াসহ পৌরসভার যে সকল স্থানে বর্ষাকালে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় তা স্থায়ী নিরসনকল্পে মাষ্টারপ্লান তৈরি করা এবং দ্রুত বাস্তবায়ন করা।
১৮। প্রশাসনের এবং সুনাগরিকদের সহায়তায় পুরো শহরে চাঁদাবাজি, জুয়া, ছিনতাই, ডাকাতি, মাদকসহ সকল অসামাজিক কাজ প্রতিহত করার উদ্যোগ গ্রহণ করা।
১৯। গরিব পৌরবাসীর চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার জন্য একাধিক পৌর স্বাস্থ্য কেন্দ্র স্থাপন ও বর্তমান সেবার পরিধি সম্প্রসারণ।
২০। গরিব ও মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীর জন্য উপবৃত্তি প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
২১। শহরের সকল রাস্তায় চলাচলের উপযোগী রাখতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
২২। শহরকে গ্রীনসিটি হিসেবে গড়ে তুলতে বৃক্ষরোপন ও বাগান সৃজনে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা। এ বিষয়ে পরিবেশবাদী সংগঠন সমূহকে কাজে লাগানো।
২৩। শহরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত করতোয়া নদী খনন পূর্বক উভয় পাশে চলাচলের পথ নির্মাণ করে দৃষ্টিনন্দন হিসেবে গড়ে তোলা।
২৪। উডবার্ন পাবলিক লাইব্রেরির উন্নয়ন ও সাতমাথাস্থ থমসন হল সংরক্ষণ করা।
২৫। পৌরসভার ওয়েব সাইট চালু করা, যাতে পৌরবাসী অভিযোগ দাখিল আর পরামর্শ প্রদানের মাধ্যমে উন্নয়ন কর্মকান্ডে সরাসরি অংশ গ্রহণের সুযোগ পায়।
২৬। প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে একটি ওয়ার্ডে মেয়রের জনসংযোগ কার্যক্রম প্রবর্তন, যাতে এলাকার সমস্যা সমাধানে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব হয়।
২৭। পৌরসভার অধীন মার্কেটগুলির বিদ্যমান সমস্যা অতি দ্রæত নিষ্পত্তি করা হবে।
২৮। জাতীয় দিবস, নববর্ষ, নবান্ন, ঈদ-পূজা-বড়দিন উপলক্ষে মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা।
২৯। সকল সাংস্কৃতিক ও সমাজসেবী কার্যক্রমকে পৃষ্ঠাপোষকতা প্রদান।
৩০। বগুড়াকে একটি ব্যবসা ও বিনিয়োগ বান্ধব শহর গড়ে তুলতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা।
৩১। বগুড়ায় পর্যটন শিল্পের বিকাশে বে-সরকারী উদ্যোক্তাদের আকৃষ্ট করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা।
৩২। পৌর এলাকার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষাদান ও পরিচালনার যুগোপযোগী করার মাধ্যমে শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নতি করা।
৩৩। বগুড়া পৌর সভার সার্বিক টেকসই উন্নয়নের জন্য একটি মাস্টার প্লান প্রণয়ন করা হবে এবং এতে এ শহরের সব শ্রেণি পেশার মানুষের মতামত গ্রহণ করা হবে।
৩৪। বগুড়া পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশনে রূপান্তরের জনদাবীকে সংগঠিত করা এবং সকল মতাদর্শের নাগরিকদের সহায়তায় তা বাস্তবায়ন করা।
৩৫। সকল নাগরিককে সব ধরনের সেবা দিতে পৌরসভা অফিসকে জনবান্ধব হিসাবে গড়ে তোলা হবে।
এসময় তিনি বলেন, আপনাদের সবার সমর্থনে মেয়র পদে নির্বাচিত হলে এই পৌরসভাকে পৌরবাসীর চাহিদামত সকল নাগরিক সুযোগ সুবিধা সম্মলিত একটি আধুনিক পৌরসভায় রুপান্তরিত করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক
ফলুল বারী তালুকদার বেলাল, সদস্য আলী আজগর তালুকদার হেনা, এ, কে ,এম ,আহসানুল তৈয়ব জাকির, জয়নাল আবেদীন চাঁন, শেখ তাহাউদ্দিন নাইন, মনিরুজ্জামান মনির, মঞ্জুরুল হক মুনজু, শহর বিএনপি,র আহবায়ক মাহবুর রহমান বকুল প্রমূখ।