নোতুন খবর.কম : বাংলাদেশ ব্যাংক বগুড়া শাখার অভ্যন্তরে ছাদ নির্মানের লোহার সাটারিং পড়ে ৩ গ্রাহক মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে রবিবার দুপুর ১২টায়। ঐ ঘটনার পর ২ ঘন্টা ব্যাংকিং কার্যক্রম বন্দ ছিল। ঘটনার পর পুলিশ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে আসে। আহতরা হলেন বগুড়া শহরের নাটাই পাড়ার জীবন (৪০), রহমান নগরের আরমান আলী (৩৮) ও একই এলাকার সাজ্জাদ আলী নয়ন (৩৫)।
জানাযায়, রোববার সকাল থেকেই ব্যাকের ভেতরে স্বাভাবিক কার্যক্রম চলছিল। সেবা গ্রহীতারা লাইনে দাড়ানো অবস্থায় বেলা ১২ টার দিকে হঠাৎ করে ছাদের সংস্কার কাছের লোহার শাটারিং খুলে পড়ে। এসময় বিকট শব্দ হয়। এ সময় ভেতরের গ্রাহক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা চিৎকার করে ভয়ে এদিক ওদিক ছুটতে থাকে। ভেতরে থাকারা তাকিয়ে দেখেন সাদ নির্মানের লোহার সাটারিং এর নীচে ৩জন রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। পরে আহতদের উদ্ধার করে ব্যাংকের কর্মচারীরা হাসপাতালে নিয়ে যায়। ঐ ঘটনার পর দুপুর ১২টা থেকে ২ টা পর্যন্ত ব্যাংকিং কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। অনেক গ্রাহক চলে গেলেও যারা বই ও টোকেন জমা দিয়েছিল তারা বাইরে বারান্দায় অবস্থান নেয়।
সঞ্চয়পত্র নিতে আসা নাটাইপাড়ার গ্রাহক জাকিয়া সুলতানা জানান, সাটারিংটি পুরুষদের লাইনে পড়েছিল। ঐ ঘটনায় ৩ জন আহত হয়েছে বলে তিনিও জানান। জাকিয়া সুলতানা আরো জানান, দুপুর ২টায় বারান্দায় কাউন্টার থেকে গ্রাহকদের টাকা দেয়া শুরু করে।
বাংলাদেশ ব্যাংক বগুড়া শাখার মহা ব্যবস্থাপক জগন্নাথ চন্দ্র ঘোষ সাংবাদিকদের জানান, ৭ বছর আগে থেকে ব্যাংকের ছাদ দিয়ে পানি পড়ছিল। ছাদ নষ্ট হওয়ায় ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় থেকে নির্মানের জন্য টেন্ডার আহবান করা হয়। কাজটি পায় গেøাবাল এন্টারপ্রাইজ। ব্যাংকের কার্যক্রম অন্য কোথাও সরিয়ে নেয়ার বিকল্প জায়গা না থাকায় গত শনিবার থেকে ঐ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ শুরু করে। একই সাথে ভেতরে নির্মানকাজও চলতে থাকে। হঠাৎ কিভাবে সাটারিং এর লোহার পাইপ পড়ে গেল তা এখনও জানতে পারিনি।
বগুড়া মোহাম্মাদ আলী সরকারী হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ রাজীব জানান,আহত তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এদের মধ্যে সাজ্জাদ হোসেন নয়নের অবস্থা গুরুতর।
বগুড়া সদর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান জানান, গেøাবাল এন্টারপ্রাইজের সুপারভাইজার সুরমান আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।