নোতুন খবর.কম : বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রিয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আব্দুল মান্নান এমপি বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে অর্জিত হয়েছে আমাদের স্বাধীনতা। জননেত্রী শেখ হাসিনা দক্ষতা দিয়ে বিশ্বের বুকে দেশকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনের লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। খাদ্যশষ্য সহ মৎস, শাকসবজি ও বিদ্যুৎ উৎপাদন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য সকল ক্ষেত্রে দেশ এগিয়ে গেছে। উত্তরাঞ্চলে এখন আর মঙ্গা নেই, কেউ না খেয়ে থাকে না।খাদ্য ঘাটতির বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংস¤পূর্ণ। এ বছর ৩২ লাখ মে: টন উদ্বৃত্ত খাদ্য শষ্য রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কৃষি ও খাদ্যশস্য উৎপাদনে অভূতপূর্ব সাফল্য এসেছে। ফলে ২০০৯ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত চালের উৎপাদন প্রতি বছর বেড়েছে। নতুন নতুন জাত উদ্ভাবন করে চাল উৎপাদন বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রাখা হয়েছে। লবণাক্ত, খরা, জলমগ্নতা সহনশীল ও জিংকসমৃদ্ধ ধানসহ শতাধিক উচ্চফলনশীল জাত ধান উদ্ভাবন করা হয়েছে। যার কারণে ধান উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন চতুর্থ অবস্থানে। কৃষিতে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কারও কৃষকদের উৎসাহিত করেছে। তিনি বলেন, সারাদেশের ন্যায় বগুড়াতেও ব্যাপক উন্নয়ন কাজ চলছে। বগুড়া-সিরাজগঞ্জ রেলপথ নির্মান সহ রাজশাহী ও ঢাকার মত বগুড়ায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। ইতিমধ্যেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। অর্থনৈতিক জোনের জন্য জায়গা নির্ধারন করে কাজ শুরু হয়েছে। এতে করে এ অঞ্চলের মানুষের কর্মসংস্থান হবে। কৃষি যন্ত্রাংশ উৎপাদনে সবচেয়ে এগিয়ে আছে বগুড়া। স্থানীয়ভাবে সারাদেশে সরবরাহকৃত কৃষি যন্ত্রাংশের প্রায় ৮০ শতাংশ জোগান দিচ্ছে বগুড়া। একসময় এ খাতটি পুরোপুরি আমদানিনির্ভর ছিল। কিন্তু বর্তমানে কৃষি যন্ত্রাংশ উৎপাদনে সরকারের প্রচেস্টায় বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পূর্ণতার পথে রয়েছে। কৃষক ঋণ পাচ্ছে, সারের দাম কমানো হয়েছে। অধিক উৎপাদনের জন্য আধুনিক যন্ত্রপাতির বিকল্প নেই। তিনি সকলকে একসাথে কাজ করে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার আহবান জানান। তিনি শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ এগ্রিকালচারাল মেশিনারী মার্চেন্ট এসোসিয়েশন (বামমা) বগুড়া জেলা শাখার নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেন। শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বামমা বগুড়ার সভাপতি আলহাজ শেখ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বগুড়া জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ, বামমা কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব নুরুল ইসলাম, বামমার পরিচালক শরীফ হোসেন। এর আগে সকালে আলহাজ শেখ এর সভাপতিত্বে বার্ষিক সাধারণ সভার ১ম পর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বামমা কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব নুরুল ইসলাম। সভায় সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন বামমা বগুড়ার সাধারণ সম্পাদক রাজেদুর রহমান রাজু। আয় ব্যায়ের রিপোর্ট পেশ করেন কোষাধ্যক্ষ শাহজাহান আলী। অনুষ্ঠানে নবনির্বাচিত সি: সহ-সভাপতি দিলীপ কুমার দে, সহসভাপতি সেলিম রেজা সানু, সহ-সা: সম্পাদক হাসানুর রহমান সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ সহ আব্দুস সামাদ, বিশ্বজিত বসাক, গোলাম রব্বানী, তৌহিদুর রহমান সাজু, সিরাজ উদ্দিন সাহানা, হাফিজার রহমান, রেজাউল মতিন টুটুল, আবু তালেব উজ্জল সহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।