শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি : শাজাহানপুর উপজেলার ফুলদীঘি উত্তরপাড়ার ভাড়া বাড়িতে রুমা খাতুন (৩৫) নামে এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। রোববার রাতে এ ঘটনা ঘটে। এর আগে সে স্বামী ও ছেলেকে অন্য ঘরে আটকিয়ে রাখে। এ ব্যাপারে শাজাহানপুর থানায় ইউডি মামলা করা হয়েছে।
বগুড়ার কৈগাড়ি ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক হরিপদ দাস ও অন্যরা জানান, নাটোরের সিংড়া উপজেলার সতর গ্রামের জুয়েল খান বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া এলাকায় অ্যাসেনশিয়াল ড্রাগস্ কোম্পানি লিমিটেডে চাকরি করেন। এ সুবাদে তিনি শাজাহানপুর উপজেলার ফুলদীঘি উত্তরপাড়ার ভাড়া বাড়িতে স্ত্রী রুমা খাতুন ও অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলেকে নিয়ে বসবাস করেন।
১৪-১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের তাদের মধ্যে নানা কারণে কলহ চলে আসছিল। ওই দম্পতির দুই পরিবারের মাঝেও সম্পর্ক ভালো নয়, মামলাও রয়েছে। রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এতে রাগ করে জুয়েল তার ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে অন্য ঘরে ঘুমাতে যান। এরপর রুমা ওই ঘরে সিটকিনি দিয়ে স্বামী ও ছেলেকে আটকিয়ে রাখেন। এরপর অপর শয়ন ঘরের দরজা বন্ধ করে ফ্যানের হুকের সঙ্গে ওড়না বেঁধে গলায় ফাঁস দেন।

দীর্ঘ সময় কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে জুয়েল খান প্রতিবেশীদের ডেকে আনেন। পরে দরজা ভেঙে দেখা যায় রুমা খাতুনের নিথর দেহ ঝুলছে। খবর পেয়ে কৈগাড়ি ফাঁড়ির পুলিশ লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।