ডেস্ক : চীনে বিলুপ্তপ্রায় প্যাঙ্গোলিন বা বনরুই থেকে মানবদেহে ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস। এমন অভিমত দিয়েছেন দেশটির একদল গবেষক। সম্প্রতি এক হাজারেরও বেশি বন্যপ্রাণীর নমুনা পরীক্ষা করার পর এ অভিমত দেন দেশটির গুয়াংজু প্রদেশের সাউথ চায়না এগ্রিকালচার ইউনিভার্সিটির গবেষকরা।

তারা জানান, করোনাভাইরাস ছড়ানোর পর সন্দেহভাজন এক হাজারেরও বেশি বন্যপ্রাণীর নমুনা পরীক্ষা করেন তারা। পরীক্ষায় দেখা যায়, বনরুইয়ের শরীরে এমন একটি ভাইরাস রয়েছে, যার জিনোম সিকোয়েন্স (কোষের সম্পূর্ণ ডিএনএ বিন্যাসের ক্রম) করোনা ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্সের সঙ্গে ৯৯ শতাংশ পর্যন্ত মিল রয়েছে।

সম্প্রতি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকেই প্রথম এই প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেয়। তখন ধারণা করা হয়, সেখানকার একটি সি-ফুডের মার্কেট থেকেই এই ভাইরাস ছড়িয়েছে। যার জন্য দায়ী সামুদ্রিক মাছ বা প্রাণী। এক পর্যায়ে সেই মার্কেটটি বন্ধও করে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে এই ভাইরাস ছড়ানোর জন্য সাপ ও বাদুরকে সন্দেহ করা হয়। এবার এই তালিকায় যুক্ত হলো বনরুই।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০৩ জনে। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে আরো ৩৪ হাজার ৮০০ জন। এ সংখ্যা ২০০২ সালে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া সার্স ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যাকেও ছাড়িয়ে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। সার্স ভাইরাসে তখন সারাবিশ্বে ৭৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল।