নোতুন খবর.কম :
বিকাশে টাকা তুলতে গিয়ে বগুড়া জিলা স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী (২০১৫ ব্যাচ) সানিকে মারপিট করেছে বগুড়া সাতমাথার সপ্তপদী মার্কেটের কয়েকজন ব্যবসায়ী। এসময় ওই ব্যবসায়ীরা সানির মানিব্যাগ কেরে নেয়। খবর পেয়ে সাবেক শিক্ষার্থী সানির সহপাঠিরা ঘটনাস্থলে ছুটেএলে ওই ব্যবসায়ী দোকান রেখে পালিয়ে যায়। এসময় শিক্ষার্থীরা ওই দোকান ও মার্কেটের ভেতরে অবস্থান নিলে পুলিশ এসে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এসময় পুলিশ জিলা স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী (২০১৫ ব্যাচ) সানি ও মুন এবং ব্যবসায়ী রেজাকে ধরে থানায় নিয়ে যায়।

জিলা স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী (২০১৫ ব্যাচ) সানি জানায়, স্কুলে ১৫ ব্যাচের অনুষ্ঠানর আছে। এজন্য সে বিকাশে টাকা তুলতে সপ্তপদী মার্কেটে যায়। সেখানে টাকা তোলার পর ব্যবসায়ী তাকে খুচরা না দিয়ে অন্য দোকান থেকে নিয়ে আসতে বলে। এসময় সানি ব্যবসায়ীকে টাকা দেবার অনুরোধ করলে সে প্রথমে কোন কথা বলেনা। কিছুক্ষন অপেক্ষার পর পুনরায় টাকা খুচরা দিতে বললে ওই ব্যবসায়ী তাকে মারপিট করে। একপর্যায়ে মার্কেটের গেট বন্ধ করে দিয়ে অশেপাশের ব্যবসায়ীদেরকেও ডেকে এনে তাকে মারপিট করে। এসময় ব্যবসায়ীরা তার পকেট থেকে মানিব্যাগটি তুলে। এসময় সে দৌরে পালাতে গেলে হাতের মোবাইলটিও পড়ে যায়। পড়েগিয়ে মোবাইলটি উদ্ধার করে।
এদিকে সহপাঠির এমন ঘটনা শুনে স্কুলে অবস্থান করা তার সহপাঠিরাও ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। তারাএসে মার্কেটে ঢুকে ওই ব্যবসায়ীকে খুঁজতে থাকে। শিক্ষার্থীদের আসাদেখে ওই ব্যবসায়ী দোকান রেখে অন্য জায়গায় চলেযায়।

এসময় পুলিশও ঘটনাস্থলে আসলে সহপাঠিকে মারপিটের জন্য তারা ব্যবসায়ীদের বিচার দাবী করে। এসময় শিক্ষার্থীরা যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঘটনা ঘটেছে সেই ব্যবসায়ীকে ধরে নিয়ে আসার দাবী জানিয়ে দোকানের ভেতরে অবস্থান নেয়। পরিস্থিতি ধিরে ধিরে উত্তপ্ত হতে দেখে পুলিশ সাবেক শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এরপর ২ সহপাঠীকে থানায় নিয়ে যাওয়ার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় এসে সড়ক ব্যারিকেডগুলি রাস্তায় ফেলে দেয়। তারা পুলিশ থানায় নিয়ে যাওয়া দুই সহপাঠিরকে ছেড়ে দেয়ার দাবী জানায়।

সাবেক শিক্ষার্থীরা দাবী করে পুলিশ তাদেরকে মার্কেট থেকে বের করে দেয়ার সময় শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ ও মারপিট করেছে। এঘটনারও তারা বিচার দাবী করে।

ঘটনাস্থলে আসা সদর থানার এসআই মোস্তফা জানান, বিকাশে টাকা তুলতে গেলে ব্যবসায়ীর সাথে শিক্ষার্থীর হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। শিক্ষার্থীরা দোকান ভাংচুর করতে গেলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এসময় ২ সাবেক শিক্ষার্থী ও এক ব্যবসায়ীকে ধরে থানায় নেয়া হয়েছে।