ডেস্ক : চলমান কঠোর লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। করোনা মহামারি বিস্তার রোধে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউন বা বিধিনিষেধ ১৫ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত শিথিল করা হবে।
সোমবার প্রধান তথ্য অফিসার সুরথ কুমার সরকার জানান, চলমান বিধিনিষেধ আগামী ১৫ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত শিথিল করা হবে। তবে আগামী ২৩ জুলাই থেকে আবার কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হবে বলেও জানান তিনি।
কোরবানির ঈদ উপলক্ষে চলমান বিধিনিষেধ শিথিল করে খুলে দেওয়া হচ্ছে সব ধরনের দোকানপাট ও শপিংমল। ঈদ উপলক্ষে কেনাকাটার কথা বিবেচনায় নিয়ে এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। তবে এ সময় সবাইকে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি।

সোমবার ( ১২ জুলাই) বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে এ বিষয়ক নথি অনুমোদন হয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে এসেছে। যে কোনো সময় প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।
বিধিনিষেধ শিথিল করে চলবে গণপরিবহন চলাচলের কথাও বলা হয়েছে। তবে এ সময় বন্ধ থাকবে সব ধরনের বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তবে ভার্চুয়ালি চলবে সরকারি অফিস।
তবে ঈদের পর আবারও ১৪ দিনের জন্য কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হতে পারে। এ আট দিনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক আসন ফাঁকা রেখে চলবে সকল গণপরিবহন। চলমান লকডাউন আগামী ১৪ জুলাই রাত ১২টা পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপ সামাল দিয়ে যাত্রা নির্বিঘ্ন করতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
সোমবার বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের জানান, ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে গরু ব্যবসায়ী ও দোকান মালিকদের কথা বিবেচনা করে সরকার চলমান কঠোর লকডাউনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। তার কিছুক্ষণ পরই রেলপথ মন্ত্রণালয় জানায়, আগামী বৃহস্পতিবার থেকে সারা দেশে রেল যোগাযোগ ফের চালু হচ্ছে।