ডেস্ক:
ভারতের রাজধানী দিল্লিতে এবার ধর্ষণের শিকার হলেন ৮৬ বছরের এক বৃদ্ধা। ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা।

স্থানীয় সংবাদামাধ্যমগুলো জানিয়েছে, সোমবার সন্ধ্যায় দক্ষিণপশ্চিম দিল্লির ছাওলায় ওই ঘটনা ঘটে। গ্রেপ্তার হওয়া যুবকের বয়স বয়স ৩০ এর কোটায়।

প্রতিদিনের মতো সোমবরও দুধওয়ালার জন্য বারান্দায় অপেক্ষা করছিলেন ওই বৃদ্ধা। অনেকক্ষণ অপেক্ষার পরও দুধওয়ালা না আসায় ৩০ বছরের এক যুবক তাকে বলেন, আজ হয়তো দুধওয়ালা আসবে না, আসুন আপনাকে একটা গরুর খামারে নিয়ে যাই। খবর বিবিসির।

এ কথা বলে বৃদ্ধাকে পাশের একটি গরুর খামারের কাছাকাছি নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে।
বৃদ্ধা কান্নাকাটি করে তাকে ছেড়ে দিতে বলেছিলেন। বলেছিলেন, তিনি তার দাদীর বয়সী। কিন্তু সে অনুরোধে কান না দিয়ে যুবকটি তাকে ধর্ষণ করে। বৃদ্ধা বাধা দিতে চেষ্টা করলে তাকে মারধর এবং নির্যাতনও করা হয়। এ সময় বৃদ্ধার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে বৃদ্ধাকে উদ্ধার ও ধর্ষককে আটক করে পুলিশে দেন।

বিবিসি জানায়, দিল্লির নারী বিষয়ক কমিশনের প্রধান স্বাতি বৃদ্ধার অবস্থা দেখতে মঙ্গলবার ছাওলায় তার বাড়িতে গিয়েছিলেন। বৃদ্ধার শারীরিক ও মানসিক অবস্থা দেখে তার ‘হৃদয় ভেঙে গেছে’ বলে জানান স্বাতি। তিনি বলেন, ‘‘বয়সের ভারে তার হাতের চামড়া পুরো কুঁচকে গেছে। তার সঙ্গে যা ঘটেছে সেটা শোনার পর আমরা হতবাক হয়ে গেছি। তার মুখে ও সারা শরীরে কালশিরা পড়ে গেছে।

শারিরীক অত্যাচারে বৃদ্ধার রক্তক্ষরণও হয়েছে জানিয়ে স্বাতি বলেন, “তিনি (বৃদ্ধা) ভয়ঙ্কর ট্রমার মধ্যে আছেন।”স্বাতি বিচারে ধর্ষণকের মৃত্যুদণ্ড দাবি করে ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘‘ওই ব্যক্তি মানুষ না।

“আমি দিল্লি হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি এবং নগরীর লেফ্টেন্যান্ট-গভর্ণরকে চিঠি লিখে মামলাটির দ্রুত বিচার করার অনুরোধ জানাতে যাচ্ছি। যাতে ছয় মাসের মধ্যে তার ফাঁসি হয়।”

ভারতের ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরো-র তথ্যানুযায়ী, ২০১৮ সালে দেশটিতে ৩৩ হাজার ৯৭৭টি ধর্ষণ মামলা দায়ের হয়েছে। যার অর্থ, সেখানে প্রতি ১৫ মিনিটে একটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

তবে সমাজকর্মীদের দাবি, ধর্ষণের প্রকৃত ঘটনা এর কয়েক গুণ বেশি। কারণ, প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থার কারণে ধর্ষণের বেশিরভাগ ঘটনায় মামলা হয় না। সব ঘটনা খবরের শিরোনামও হয় না।

ভারতে করোনাভাইরাস মহামারীর এ সময়ে এক অ্যাম্বুলেন্স চালক রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় তাকে ধর্ষণ করেন বলেও খবর প্রকাশ পেয়েছে।

যোগিতা ভায়ানা নামে এক নারী অধিকারকর্মী বলেন, ‘‘বয়স যাই হোক, এ দেশে কোনো নারী নিরাপদ নন। “আমি এক মাসের মেয়ে শিশু দেখেছি, যে ধর্ষণের শিকার হয়েছে।”

দিল্লির নারী বিষয়ক কমিশনের প্রধান স্বাতি মালিবাল মঙ্গলবার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই বৃদ্ধাকে দেখে এসে গণমাধ্যমকে বলেন, এটি একটি বর্বরোচিত ঘটনা। তিনি ওই নিপীড়কের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান।