ডেস্ক :
করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে এবার বার্ষিক পরীক্ষা না নিয়েই মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের ওপরের শ্রেণিতে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। বুধবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, কোনো পরীক্ষা নয়, এবারের যে পরিস্থিতি, কোনো পরীক্ষা নয়। এবার কোনো বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না।

তিনি বলেন, তবে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ঘাটতি পূরণের জন্য ৩০ কর্মদিবসে শেষ করা যায় এমন একটি সিলেবাস এনসিটিবি প্রণয়ন করেছে। ওই সিলেবাসের আলোকে শিক্ষার্থীদের প্রতি সপ্তাহে একটি করে অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হবে। অ্যাসাইনমেন্ট নিজ নিজ স্কুলে জমা দিতে হবে। তবে অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন করার জন্য নেয়া হবে না। অ্যাসাইনমেন্ট নেয়া হবে শিক্ষার্থীর শিখন ফলের ঘাটতি বুঝে পরবর্তী ক্লাসে রেমিডিয়াল ক্লাস নেয়ার জন্য। সকল শিক্ষার্থীই পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এই মূল্যায়ন শিক্ষার্থীদের তার পরের ক্লাসে উত্তীর্ণ হওয়ার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের প্রভাব ফেলবে না। এবার পরীক্ষা ছাড়াই সবাই ওপরের ক্লাসে যাচ্ছে। এই মূল্যায়ন শুধুমাত্র আমাদের বোঝার জন্য শিক্ষার্থীদের কোথায় কোথায় দুর্বলতা আছে, সেগুলো পরের ক্লাসে কাটিয়ে ওঠার ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি বলেন, ৩০ কর্ম দিবসের জন্য তৈরি করা পাঠ্যসূচি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের কাছেও তা পৌঁছে দেওয়া হবে।

পরিস্থিতির যথেষ্ট উন্নতি না হওয়ায় এবার পঞ্চম ও অষ্টমের সমাপনী পরীক্ষা যে হবে না, সে কথা সরকার আগেই জানিয়েছিল। আর এইচএসসি পরীক্ষা না নিয়ে অষ্টমের সমাপনী এবং এসএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা হবে বলেও ইতোমধ্যে জানানো হয়েছে।

তবে আগামী বছর ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি এবং এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার আগ্রহের কথা জানিয়ে সেজন্য শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষার্থীদের আমি বলব, যাদের সামনের বছর এসএসসি ও এইচএসসি আছে, তারা অবশ্য অবশ্যই নিজেরা নিজেদের… সবার কাছে বই আছে, যতদূর সম্ভব অনলাইনে অ্যাকসেস করবেন। সমস্ত ক্লাসগুলো আছে আপনারা আপনাদের পড়াশোনাগুলো চালিয়ে যান।

কারণ পরীক্ষা যদি কিছুদিন পরেও হয়, সময়মত হয়ত করার আমরা চেষ্টা করব, সময়মত হলে তো হলই, না হলে যদি কিছুদিন পরেও হয় তাহলেও কিন্তু পরীক্ষা হবে। সেক্ষেত্রে আপনাদের প্রস্তুতিটি ভালোভাবে নিয়ে নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।