ডেস্ক :
যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনের আগেই আগাম ভোট দেওয়ার হিড়িক। ইতোমধ্যে দেশটিতে আট কোটির বেশি ভোটার গোপন ব্যালটে ভোট দিয়েছেন। যা রেকর্ড পরিমাণ ছাড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরিডার এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবর রয়টার্সের।
ভোট গ্রহণের যে হার তা এক শতাব্দীর রেকর্ড ভেঙেছে।

২০১৬ সালের নির্বাচনের তুলনা ৫৮ শতাংশ বেশি ভোট পড়েছে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের উদ্বেগকে উপক্ষো করে বিপুল সংখ্যক ভোটার ভোট দিতে আসেন। আগাম ভোটের এ আয়োজনের মধ্য দিয়ে নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের যে আগ্রহ তা পরিলক্ষিত হচ্ছে।
আগামী ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মূল ভোটগ্রহণ। তবে সেদিন ভিড়ের কারণে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে শঙ্কা থেকে অনেকেই আগাম ভোটে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ট ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন।

বৈশ্বিক মহামারি করোনার আক্রমণে কারণে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটির রাজ্যের ভোটাররা এবার ‘মেল ইন’ ভোট দেওয়ার আবেদন করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রে ‘মেল ইন’ ভোট হলো ডাকযোগে ভোট দেওয়ার বিধান। তবে ‘মেল ইন’ ভোটে ডেমোক্র্যাটদের আগ্রহ থাকায় ডোনাল্ট ট্রাম্প এতে জালিয়াতির আশঙ্কা করছেন।

২০১৬ সালের নির্বাচনে ট্রাম্প বিজয়ী হন। ওই নির্বাচনে ভোট পড়েছিল মোট ১৩ কোটি ৮০ লাখ। এবার ভোট পড়ার সেই রেকর্ড সহজেই ভেঙে যাবে বলে নির্বাচন বিশ্লেষকরা মনে করছেন। কারণ গতবার নির্বাচনে আগাম ভোট পড়েছিল ৪ কোটি ৭০ লাখ।

যুক্তরাষ্ট্রের ২০টি অঙ্গরাজ্যের দলীয় নিবন্ধনের তথ্যে দেখা যায়, ইতোমধ্যেই ১ কোটি ৮২ লাখ নিবন্ধিত ডেমোক্র্যাট সমর্থক ভোট দিয়েছেন। রিপাবলিকানরা ভোট দিয়েছেন ১ কোটি ১৫ লাখ এবং নিরপক্ষে ভোটার ভোট দিয়েছেন অন্তত ৮৮ লাখ।