সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) চিকিৎসাধীন মেশিনের সাহায্য ছাড়া এরশাদের কিডনির ফাংশন কাজ করছে কি না, একদিন তা দেখতে চেয়েছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু সুফল পাওয়া যায়নি। মেশিনের সাহায্যে আবার ডায়ালাইসিস শুরু হয়েছে। এছাড়া এক দিন বিরতি রাখার পর ফের শুরু হয়েছে হেমো ডায়া ফিল্টারেশন ও হেমো পারফিউশন।

তিনি বলেন,  এরশাদের রক্তে জীবাণুর মাত্রা ক্রমে কমে এসেছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে ৭-৮ দিন পরে এরশাদের অর্গানগুলো স্বাভাবিকভাবে কাজ করবে বলে চিকিৎসকরা ধারণা করছেন বলে জানান কাদের।
মাইডোলিসপ্লাস্টিক সিনড্রোমে আক্রান্ত এরশাদের শারীরিক অবস্থা ৩-৪ দিন ধরে স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানান তিনি।

জি এম কাদের আর ও জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার চোখ মেলে তাকালেও ওষুধের প্রভাবে তন্দ্রাচ্ছন্ন থাকায়  বুধবার আর চোখ মেলেননি।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছোট ছেলে এরিক এরশাদকে হুমকি দেওয়া প্রসঙ্গে বিস্তারিত বলতে নারাজ তার চাচা ও জাপার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

বুধবার দুপুরে বনানীতে ব্রিফিংয়ের সময় এক প্রশ্নের জবাবে জি এম কাদের বলেন, ‘অস্বাভাবিকতা কিছু যদি থাকে, তাহলে থানায় জিডি করে রাখাই তো নিয়ম। এর চেয়ে বেশি কিছু বলা বাহুল্য।  বেশি কিছু বলার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।’

মোবাইল ফোনে এরিক এরশাদকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেওয়ায় সোমবার গুলশান থানায় জিডি করেন এরশাদের ভাতিজা ও জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য খালেদ আখতার।।