সুদর্শন কর্মকার, রাণীনগরঃ নওগাঁর রাণীনগরে জুয়ার টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে সহপাঠি ঈসা (১৭) কে গুরুতর জখম করে অচেতন অবস্থায় একটি কবরস্থানের জঙ্গলে ফেলে রেখে যায় তার সহপাঠিরা। পাশে কর্মরত বয়লার শ্রমিকরা রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে ঈসাকে রক্তাক্ত জখম দেখতে পেয়ে তার স্বজনদেরকে জানালে আহত ঈসাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে
নিলে অবস্থার অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুরে উপজেলার চকাদিন গ্রামে।
জানা গেছে উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নের চকাদিন গ্রামের মুঞ্জু প্রামানিকের ছেলে ঈসা প্রামানিক তার সহপাঠি চককুতুব গ্রামের ময়নূলের ছেলে শৈকত (১৭) একই গ্রামের অঞ্জুর ছেলে মিঠু (১৫)সহ আরো কয়েকজন কিশোর সহপাঠিকে মিলে চকাদিন কারিগরপাড়া কবরের পাশে ঝোপ জঙ্গলের ভিতরে শুক্রবার সকাল ১০টার পর থেকে টাকা দিয়ে জুয়া খেলা শুরু করে। বেলা ১২টার দিকে খেলার সাথী সবার কাছ থেকে ঈসা প্রামানিক টাকা জিতে নেয়। এক পর্যায়ে শৈকত ও মিঠু ঈসার কাছ থেকে কিছু টাকা ভাগ চাইলে ঈসা দিতে অস্বীকার করায় জঙ্গলে পরিত্যাক্ত ভাঙ্গা কাঁচের অংশ দিয়ে মাথায় স্বজরে কয়েকবার আঘাত করলে ঈসা রক্তাক্ত জখম হলে অচেতন অবস্থায় ফেলে রেখে খেলার সাথীরা ঘটনা স্থল থেকে চলে যায়। ঘটনাস্থলের কিছু দূরে কর্মরত চাতাল শ্রমিকরা ওই কবরের পাশ দিয়ে বাড়িতে ফেরার
পথে ঈসাকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় দেখতে পেয়ে সেখান থেকে উদ্ধার করে তার স্বজনদের খবর দেয়। ঈসাকে রাণীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে প্রচুর রক্তক্ষরণ দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক নওগাঁ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার
জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। তার অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন বলে স্বজনরা জানান। ঘটনার পর থেকে ঈসার সাথীরা পালিয়ে গেলেও পক্ষে বিপক্ষে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।
রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহিন আকন্দ জানান, আমরা ঘটনাস্থ পরিদর্শন করে কিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।