সুদর্রাশন কর্ণীমকার, রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগরে কঠোর লকডাউন অমান্য করে পশুর হাট বসানোর অপরাধে ইজারাদারের ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
বুধবার বিকেলে উপজেলার আবাদপুকুর হাটে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করা হয়। এছাড়া লকডাউনে গত ৭ দিনে মোট ১১৩টি মামলায় ১লক্ষ ১১হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা আদায় এবং একজনকে ৭দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) পৃথক ভাবে অভিযান পরিচালনা করেন।
সুত্র মতে,করোনা ভাইরাসের সংক্রমন রোধে সারাদেশে সরকার ১জুলাই থেকে ৭দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষনা করে। এতে পশুর হাট বন্ধ ঘোষনা করা হয়। এর পরে সরকার আরো ৭ দিনের লকডাউন বাড়িয়ে ১৪ জুলাই পর্যন্ত বর্ধিত করা করে। এরই মধ্যে বুধবার উপজেলার আবাদপুকুর হাটে সকাল থেকেই পশুহাট শুরু হয়। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশসহ হাটে অভিযান পরিচালনা করে পশুহাট ভেঙ্গে দেন এবং সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে হাট বসানোর অপরাধে সংশ্লিষ্ঠ ইজারাদারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এর পর নির্বাহী কর্মকর্তা চলে যাবার পর আবারো হাট বসলে বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাশেদুল ইসলাম আসার খবরে হাটের লোকজন দিক-বিদিক ছুটো-ছুটি করতে থাকে। এসময় বেশ কিশু লোকজন গরু-ছাগল ফেলে রেখে হাট থেকে পালিয়ে যায়। মহুর্তের মধ্যেই হাট ফাঁকা হয়ে যায়।
এদিকে নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো এবং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাশেদুল ইসলামসহ সেনাবাহিনী,বিজিবি,পুলিশ ও আনছার
বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের পৃথক অভিযান পরিচালনা করেন।
চলমান লকডাউনে ১জুলাই থেকে ৭জুলাই পর্যন্ত ৭দিনে লকডাউনের নির্দেশনা অমান্য করে প্রাইভেট পড়ানোর দায়ে দুইজন শিক্ষককে ৭ হাজার,আবাদপুকুর হাট ইজারাদারকে ২০ হাজার,সদরের ৩টি ক্লিনিকে স্বাস্থ্য বিধি না মানার অপরাধে মোট ১৫ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন ঘটনায় ১১৩টি মামলায় মোট ১লক্ষ ১১হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়া এক জনকে ৭দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়া হযেছে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো।