নোতুন খবর.কম :
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেছেন, আওয়ামীলীগই একমাত্র সংগঠন যারা গণমানুষের কল্যাণের রাজনীতি করে। আমাদের প্রিয় নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ দিয়েছেন, এই করোনাকালীন সময়ে একটি মানুষও যেন না খেয়ে মারা না যায়। তিন দলীয় নেতাকর্মীদের সাধ্যমত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন।। ইতিমধ্যে ৩,২০০ কোটি টাকার পাঁচটি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, নৌ পরিবহন শ্রমিক সহ কর্মহীন অসহায় মানুষের জন্য।
তিনি সোমবার সকাল ১০টায় শেরপুর টাউন ক্লাব পাবলিক লাইব্রেরী মহিলা ডিগ্রী কলেজ চত্বরে করোনাকালীন সময়ে কর্মহীন ও দুস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কালে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে এসব কথা বলেন।
এস এম কামাল হোসেন আরো বলেন বর্তমান এই দুঃসময়ে বিএনপি’র ওয়ান-ইলেভেনের কুশীলবরা আবারো সক্রিয় হয়ে উঠেছে তারা মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে অপপ্রচার নিয়ে ব্যস্ত। দেশের মানুষের কথা না ভেবে তারেক গং সব সময় দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন । কিন্তু শেখ হাসিনা সব সময় দেশের মানুষের কথা চিন্তা করেন। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগ ১কোটি ২৫লক্ষ পরিবারকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে এবং ১৫ কোটির নগদ অর্থ বিতরণ করেছে জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে। সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সাধ্যমত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।মহামারির এই সংকটে আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা মানুষের পাশে দাঁড়ায়নি উল্লেখ করে এস এম কামাল বলেন, শুধু আওয়ামী লী মানুষের পাশে আছে। অন্য কেউ মানুষের পাশে দাঁড়ায় না। আর বিএনপি জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে সরকারের সমালোচনার মধ্য দিয়ে মহামারি নিয়ে রাজনীতি করতে চায়। তারা রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে চায়। এই অপরাজনীতি অপশক্তির বিরুদ্ধে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান কামাল হোসেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মজিবুর রহমান মজনু, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল ওহাব, শেরপুর টাউন ক্লাব পাবলিক লাইব্রেরী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ নুরুল ইসলাম,পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল আলম খোকন,পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহুরুল ইসলাম জহু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রহমান শুভ প্রমুখ।