ডেস্ক : মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থিত সব মার্কিন ঘাঁটি ইরানি ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় আছে বলে দাবি করেছেন লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ। স্থানীয় সময় গতকাল রোববার লেবাননে হিজবুল্লাহ সমর্থকদের উদ্দেশ্যে ভাষণকালে তিনি এ কথা বলেন। খবর পার্সটুডে।

আল আসাদ ঘাঁটিতে ইরানের নিখুঁত ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রশংসা করে নাসরুল্লাহ তার ভাষণে বলেন, এ হামলায় ইরান যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি তার বন্ধু রাষ্ট্র ইসরায়েলকেও হুমকি দিয়েছে। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়ানহুকে উদ্দ্যেশ্য করে তিনি বলেন, তিনি ভুল জায়গায় হাত দিয়েছেন। ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র তাকে ও তার রাষ্ট্রকে ধ্বংস করতে সক্ষম।

তিনি আরো বলেন, আল আসাদ ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে ইরান যুক্তরাষ্ট্রকে চপেটাঘাত করেছে মাত্র। নিহত কাশেম সোলায়মানি হত্যার প্রতিশোধ এর চাইতেও নির্মম হবে। যুক্তরাষ্ট্রের নেতাদের মুখে এখন কোনো বিজয়ের ছাপ নেই। তারা যে অপরাধ করেছে তা নিয়ে তারা বেশ উদ্বিগ্ন।

মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সেনাদের তৎপরতার সমালোচনা করে নাসরুল্লাহ বলেন, বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসী হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বের যেখানেই অপরাধ ঘটুক না কেন সে ঘটনাকে মেড বাই আমেরিকা বলে সম্বোধন করতে বলেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের ছত্রছায়ায় ইসরায়েলও একই ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের সাথে তাদের অবস্থাও একই রকম হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

হিজবুল্লাহ নেতা বলেন, কাশেম সোলায়মানি হত্যার পর বিশ্বের কাছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আসল চেহারা উন্মোচিত হয়েছে। যার ফলে অচিরেই মার্কিন সেনারা মধ্যপ্রাচ্য ত্যাগ করতে বাধ্য হবে। তাদের মধ্যপ্রাচ্য ছাড়া করতে ইরানি সেনাদের পাশে থাকবে হিজবুল্লাহ। ইরানি সেনাদের যোগ্য সমর্থন পেলে হিজবুল্লাহ আরো শক্তিশালী হয়ে উঠবে।