ডেস্ক : ছোটবেলার ৮ বন্ধু। একটি এসইউভি গাড়ীতে চড়ে যাচ্ছিলেন জাতীয় মহাসড়ক দিয়ে। কিন্তু একটি ট্রেইলার ট্রাক যাত্রীবাহী ওই গাড়িতে সজোরে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন গাড়িতে থাকা ছোটবেলার ৭ বন্ধু। গুরুতর আহত হন আরো একজন। রোববার গভীর রাতে ভারতের রাজস্থানের ফতেহপুর-সুজানগর জাতীয় মহাসড়কের নায়মা গ্রামের কাছে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, ওইদিন গভীর রাতে আট বন্ধু দ্রুত গতিতে তাদের এসইউভি গাড়িটি চালিয়ে রাজ্যের দোগনা জেলা থেকে নাগপুর জেলার দিকে যাচ্ছিল। গাড়িটি ঘটনাস্থলে এলে ঘন কুয়াশার কারণে একটি ট্রেইলার ট্রাককে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান ৭ বন্ধু। বাকি একজনকে গুরতর আহত অবস্থায় সিকারের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন।

নিহতরা হলেন- ইমরান খান, ইসলাম খান, ইকবাল, রফিক, গাজী খান, ইমরান ও বাবু। আহত আরেক বন্ধু নাম রাশেদ। তাদের প্রত্যেকের বয়স ৩০ থেকে ৩২ বছরের মধ্যে এবং সকলেই রাজ্যের চুরু জেলার বাসিন্দা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চুরু জেলার পুলিশ জানায়, ঘটনার পর থেকে ওই ট্রেইলার ট্রাকটির চালক ও সহকারী পলাতক রয়েছে। পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত করছে।

এদিকে এই ঘটনার পর মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি সান্ত্বনা জানিয়ে সোমবার নিজের টুইটারে একটি পোস্ট দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলোট। সেখানে তিনি লেখেন, ফতেহপুর মহাসড়কে একটি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত হওয়ার খবরে তিনি মর্মাহত। নিহতদের পরিবারের প্রতি রইলো গভীর শোক ও সমবেদনা।

স্থানীয়রা জানান, দুর্ঘটনার শিকার ওই আট জন ছোটবেলার বন্ধু। তারা ছোটবেলা থেকেই খেলাধূলা, স্কুলে যাওয়া সবকিছু একসঙ্গে করতেন। তাদের মৃত্যুও ঘটলো একসঙ্গে।